মাঠে ১৪ ম্যাজিস্ট্রেট, থাকবে পাঁচ হাজারের বেশি বিজিবি-পুলিশ

নারায়ণগঞ্জ, ১৫ জানুয়ারি – রাত পোহালেই তৃতীয়বারের মতো অনুষ্ঠিত হচ্ছে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নির্বাচন)। নানা কারণে সারাদেশে আলোচিত এই সিটি নির্বাচনে ৫ লাখ ১৭ হাজার ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ২৭টি ওয়ার্ডের ১৯২টি কেন্দ্রের ১ হাজার ৩৩৩ ভোটকক্ষে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) চলবে ভোটগ্রহণ।

নির্বাচনে দায়িত্ব পালনের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১৪ ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ১৪ জানুয়ারি থেকে ১৮ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট ৫ দিন নির্বাচনী এলাকায় কাজ করবেন তারা। এছাড়া বিজিবি, র‍্যাব-পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাঁচ হাজারেরও বেশি সদস্য মাঠে থাকবে।

১ ও ২ নং ওয়ার্ডে নারায়ণগঞ্জের অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ বদিউজ্জামান, ৩ ও ৪ নং ওয়ার্ডে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. কাউছার আলম, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বেগম শামসাদ বেগম, ৭ ও ৮ নং ওয়ার্ডে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ শামছুর রহমান, ৯ ও ১০ নং ওয়ার্ডে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. নূর মহসীন, ১১ ও ১২ নং ওয়ার্ডে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান মোল্লা।

এছাড়া ১৩ ও ১৪ নং ওয়ার্ডে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট কাজী মোহাম্মদ মোহসেন, ১৫ ও ১৬ নং ওয়ার্ডে নরসিংদী সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দেলোয়ার হোসাইন, ১৭ ও ১৮ নং ওয়ার্ডে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান, ১৯ ও ২০ নং ওয়ার্ডে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. রাকিবুল হক, ২১ ও ২২ নং ওয়ার্ডে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মাহমাদুল হাসান খান, ২৩ ও ২৪ নং ওয়ার্ড মুন্সীগঞ্জের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মানিক দাস, ২৫ ও ২৬ নং ওয়ার্ড সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আব্দুল্লাহ আল ইউসুফ, ২৭ নং ওয়ার্ডে জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ইফতি হাসান ইমরান দায়িত্ব পালন করবেন।

নির্বাচনে ১৯২টি ভোটকেন্দ্রে ও কেন্দ্রের বাইরে নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাঁচ হাজারের বেশি সদস্য নিয়োজিত থাকবেন। প্রতি কেন্দ্রে থাকবেন আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ২৬ সদস্য। পুলিশের ২৭টি ইউনিট স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে। এছাড়াও থাকবে পুলিশের ৬৪টি মোবাইল টিম, প্রতি টিমে সদস্য থাকবে পাঁচজন।

আরও থাকবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) ১৪ প্লাটুন সদস্য। অতিরিক্ত ৬ প্লাটুনের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক চাহিদা পাঠিয়েছেন বলেও জানান রিটার্নিং কর্মকর্তা। অন্যদিকে র‍্যাবের স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে ৩টি, চেকপোস্ট থাকবে ৬টি, টহল টিম থাকবে ৭টি ও স্ট্যাটিক টিম থাকবে ২টি।

উল্লেখ্য, নাসিক নির্বাচনে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালন করবে ৯টি সংস্থা। ৯টি সংস্থার ৪২ পর্যবেক্ষককে অনুমোদন দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সংস্থাগুলো হল, জাতীয় নির্বাচন পর্যবেক্ষণ পরিষদ (জানিপপ), সার্ক মানবাধিক ফাউন্ডেশন, আইন সহায়তা কেন্দ্র (আসক) ফাউন্ডেশন, সমাজ উন্নয়ন প্রয়াস, তৃণমূল উন্নয়ন সংস্থা, তালতলা যুব উন্নয়ন সংগঠন, রিহাফ ফাউন্ডেশন, বিবি আছিয়া ফাউন্ডেশন এবং মানবাধিকার ও সমাজ উন্নয়ন সংস্থা-মওসুস।

সূত্র : বাংলাদেশ জার্নাল
এন এইচ, ১৫ জানুয়ারি

মাঠে ১৪ ম্যাজিস্ট্রেট, থাকবে পাঁচ হাজারের বেশি বিজিবি-পুলিশ

সূত্রঃ দেশে বিদেশে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: