গঙ্গাচড়ায় ৩০ পরিবার ৩০ দিন ধরে পানিবন্দি, বাড়ছে রোগ ব্যাধি

পানি নিষ্কাশনের ক্যানেলসহ ছোট ইউড্রেন বন্ধ করে দেওয়ায় রংপুরের গঙ্গাচড়ায় ৩০ পরিবার প্রায় ৩০ দিন থেকে পানি বন্দি অবস্থায় মানবেতর জীবন যাপন করছে। অনেকে আক্রান্ত হচ্ছেন রোগ ব্যাধিতে। বিষয়টি সমাধানের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছেন এলাকাবাসী।

উপজেলার গজঘন্টা ইউনিয়নের রাজবল্লভ একটি গ্রাম। অব্যাহত ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে সেখানে ৩০ পরিবার গত ৩০ দিন ধরে পানিবন্দি। পানি নিষ্কাশনের একমাত্র ইউড্রেন লোকজন বন্ধ করে দেওয়ায় পানি কালো ও বিষাক্ত হয়ে পড়েছে। লোকজন বর্তমানে চরম দুর্ভোগের মধ্যে দিনাতিপাত করছেন।

সরেজমিনে এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, বৃষ্টির পানিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। পানি নিষ্কাশনের একমাত্র ক্যানেল ও ইউড্রেনটি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। প্রতিটি বাড়ির চারিদিকে পানি আর পানি। পানি জমে কালো হয়ে গেছে।
স্থানীয় লোকজন বলেন, পানি নিষ্কাশনের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায় পানি বের হয়ে যেতে পারছেনা। সেখানকার মহিলারা বলছেন অনেকের জ্বর ও ডায়রিয়া দেখা দিয়েছে। এলাকার ভুক্তভোগী এফতারুল ও আউয়ুব জানান, পানি বের না হওয়ার কারণে পানির গন্ধ বের হয়েছে। গত বছর ইউড্রেন দিয়ে পানি গেলেও এবার বন্ধ করে দিয়েছে। এলাকার মহিলা বেবি জানান কয়েকদিন থেকে জ্বরে ভুগছি। বিষয়টি সমাধানের । বিষয়টি সমাধানের জন্য উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করেছেন এলাকাবাসী।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মকছুদুর রহমান টুনু জানান, এখানে ৩০ পরিবার বাস করে। এলাকাটি একটু নিচু হওয়ার কারণে পানি নিষ্কাশনের জন্য ৫ বছর আগে একটি ইউড্রেন নির্মাণ করা হয়। গত বছরও ইউড্রেন দিয়ে পানি নিষ্কাশন হয়েছে। কিন্তু এবছর ইউড্রেন মাটি দিয়ে বন্ধ করে দিয়েছে। এ কারণে লোকজন পানিবন্দি হয়ে আছে।এ ব্যাপারে স্থানীয় লোকজন ইউএনও বরাবর আবেদন করেছে।

গজঘন্টা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আজিজুল ইসলাম জলাবদ্ধতার কথা স্বীকার করে বলেন, ইউড্রেনের সামনে মসজিদের জন্য মাটি কাটার কারণে স্থানীয় কিছু লোক সে ইউড্রেন বন্ধ করে দিয়েছে। পানি নিষ্কাশনের জন্য কিছু কালভার্ট দিতে হবে। বিষয়টি বসে সমাধান করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তাসলীমা বেগম আবেদন পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন এ ব্যাপারে মসজিদ কমিটির সংগে বসে সমাধান করার জন্য গজঘন্টা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও মেম্বারকে বলেছি।

ইত্তেফাক/আরএ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: