মাদক-অস্ত্রসহ আটক আ’লীগ নেতা বরকতের আরেক সহযোগী গ্রেফতার

ফরিদপুরে মাদক ও অস্ত্রসহ আটক আওয়ামী লীগ নেতা সাজ্জাদ হোসেন বরকতের সহযোগী মনিরুজ্জামান ওরফে এসও মনিরকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ফরিদপুর শহরের ভাজনডাঙ্গা এলাকায় বাড়ি থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

এদিকে শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন বরকতকে অব্যাহত ও বহিষ্কারের সুপারিশের পর আরও দুইজনকে শহর আ.লীগ থেকে অব্যাহতি দিয়ে বহিষ্কারের সুপারিশ করা হয়েছে।

মনিরুজ্জামান (৪৮) ফরিদপুর শহরতলীর ভাজনডাঙ্গা এলাকার বাসিন্দা। তিনি বর্ধিত ফরিদপুর পৌরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। ২০১৭ সালে মনিরুজ্জামান চাকুরী ছেড়ে এস বি কনস্ট্রাকশন নামে সাজ্জাদ হোসেন বরকতের কনস্ট্রাকশন ফার্মে ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে যোগ দেন।

ফরিদপুর শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকার জানান, শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেনের চাপের কারণে মনিরুজ্জামানকে ফরিদপুর বর্ধিত পৌরসভার ২৫ নম্বর ওয়ার্ডের সাধারণ সম্পাদকের পদ দিতে হয়।

ফরিদপুর কোতয়ালী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) শহীদুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে শহরের ভাজনডাঙ্গাস্থ বাড়িতে অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় মনিরুজ্জামানকে। তিনি বলেন, গত ১৮ মে দায়ের করা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতির সুবল চন্দ্র সাহার বাড়িতে হামলার ঘটনার আসামি হিসেবে গ্রেফতার করা হয় মনিরুজ্জামানকে।

এদিকে বুধবার বিকেল ৩টার দিকে শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি নাজমুল ইসলাম খন্দকারের স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তি থেকে জানা যায়, আ.লীগের সভাপতির বাড়িতে হামলা, ভাংচুর করে দলীয় শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজ করায় এবং দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করায় ফরিদপুর শহর আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান ও ১৬ নম্বর ওয়ার্ড আ.লীগের সভাপতি নারায়ন চক্রবর্তীকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি দলের প্রাথমিক সদস্যসহ দল থেকে তাদের বহিষ্কারের সুপারিশ করে জেলা আ.লীগের সভাপতি ও সম্পাদকের কাছে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/আরএ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: