নরসিংদীতে করোনার উপসর্গ নিয়ে দুইজনের মৃত্যু 

করোনা ভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে বুধবার নরসিংদী জেলা হাসপাতালে টুটুল মিয়া (২৪) নামে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি রায়পুরা উপজেলার ভিটি মরজাল গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে। অপরদিকে মঙ্গলবার রাতে পলাশ উপজেলার জিনারদী ইউনিয়নের পারুলিয়া গ্রামের নাজিম উদ্দিন (৪৫) নামে এক ব্যক্তি করোনার উপসর্গ নিয়ে জেলা হাসপাতালে মারা গেছেন।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, টুটুল কয়েকদিন ধরে জ্বর, সর্দি, শ্বাসকষ্ট ও গলাব্যথায় ভুগছিলেন। বুধবার দুপুরে করোনা পরীক্ষার নমুনা দেয়ার জন্য নরসিংদী জেলা হাসপাতালে আনা হয় তাকে। সেখানে নমুনা দেয়ার আগেই তার মৃত্যু ।

নরসিংদী জেলা হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. এএনএম মিজানুর রহমান জানান, করোনার উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে আসেন তিনি। অবস্থা সংকটাপন্ন হওয়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ভর্তি করার আধা ঘণ্টার মধ্যেই তার মৃত্যু হয়। প্রাথমিকভাবে তার করোনার উপসর্গ ছিল। মৃত্যুর পর তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। রিপোর্ট আসলেই করোনা কী না নিশ্চিত করে বলা যাবে।

আরো পড়ুন : ‘অর্থনীতিবিদদের পরামর্শ নিয়েই বাজেট প্রণয়ন করা হচ্ছে’

অপরদিকে মৃত্যুবরণকারী নাজিম উদ্দিন পলাশ উপজেলার ওয়াপদা গেটের পাশে সকাল-সন্ধ্যা সুপার মার্কেট এলাকার একটি ৬ তলা ভবনে ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। তার জ্বর ও শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে মঙ্গলবার সকালে তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিয়ে আসেন তার স্ত্রী। পরে মঙ্গলবার রাতেই তিনি মারা যান।

পলাশ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আমিনুল ইসলাম জানান, করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুবরণকারী নাজিম উদ্দিনের ভাড়া বাসাটি লকডাউন করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/ইউবি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: