রাজশাহীতে মানুষকে মাস্ক পরতে বাধ্য করার উদ্যোগ প্রশাসনের

রাজশাহীতে প্রতিদিন বাড়ছে করোনা সংক্রমন। এ পর্যন্ত জেলায় ৯৬ জন শনাক্ত এবং চারজনের মৃত্যু হয়েছেন। উদ্ভূত পরিস্থিতিতে জেলা জুড়ে সাধারণ মানুষকে মাস্ক পড়তে বাধ্য করার উদ্যোগ নিয়েছে প্রশাসন। বুধবার জেলা প্রশাসক হামিদুল হক এই কাযক্রম শুরু করেন। পরে জেলার বাগমারা, বাঘা, চারঘাট, পুঠিয়া, দুর্গাপুর, মোহনপুর, পবা, তানোর ও গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নেতৃত্বে প্রশাসনের কর্মকর্তারা করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু প্রতিরোধে সাধারণ মানুষকে মাস্ক পড়তে বাধ্য উদ্যোগ নেন। উদ্যোগের অংশ হিসেবে সকল উপজেলায় মাস্ক এবং হাত ধোয়া ও পরিস্কার রাখার বিষয়ে সচেতনতার জন্য আইন প্রয়োগে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু হয়েছে। অভিযানে অংশ নেয়া কর্মকর্তারা পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলমের মাধ্যমে পাওয়া সার্জিকেল মাস্ক সাধারণ মানুষের মাঝে বিনামূল্যে বিতরণ করেন।

এ বিষয়ে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার ফেসবুকের টাইমলাইনে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এতে তিনি করোনা ভাইরাসকে দমনে সচেতনতার উদ্যোগে সবাইকে অংশগ্রহণের আহ্বান জানান। স্ট্যাটাসে প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার লিখেন, ‘রাজশাহীর সব উপজেলায় মাস্ক এবং হাত ধোয়া/পরিস্কার রাখার বিষয়ে সচেতনতার জন্য উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সবাই অংশগ্রহণ করুন। নিজে বাচুন, অন্যকে বাচতে সহায়তা করুন।

এদিকে মাস্ক পরতে ও হাত ধুতে বাধ্য করতে বুধবার থেকে রাজশাহী জেলা জুড়ে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান শুরু হয়েছে। জেলার চারঘাট উপজেলায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ও জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে চারঘাট উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার সকাল ১০টায় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

শাহরিয়ার আলমের পক্ষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দা সামিরা চারঘাট বাজার চৌরাস্তা মোড়ে পথচারীদের মাঝে এসব মাস্ক বিতরণ করেন। এছাড়া চারঘাট বাজারের প্রতিটি দোকানদার ও জনসাধারণদের মাঝেও মাস্ক বিতরণ করেন।

ইত্তেফাক/বিএএফ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: