ফুলবাড়ীতে সেফটিক ট্যাংকে নেমে ২ জনের মৃত্যু

কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ীতে নব-নির্মিত আধা পাকা ভবনের নির্মাণাধীন সেফটিক ট্যাংকের পানির বিষক্রিয়ায় শ্রমিকসহ ২ জনের মৃত হয়েছে। শুক্রবার সকালে উপজেলার কাশিপুর ইউনিয়নের গংগাহাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত যুবকরা হলেন-উপজেলার অনন্তপুর বালাবাড়ী গ্রামের আব্দুল আউয়ালের ছেলে আল আমিন (২৫) ও আজোয়াটারী গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে সুজন মিয়া (৩৫)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার সকাল সাড়ে ৯টায় উপজেলার গংগাহাট বাজার সংলগ্ন পুলবাড়ী ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক আব্দুল আউয়ালের নির্মাণাধীন কক্ষের ভিতর ২০ ফিট গভীর ল্যাট্রিনের সেফটিক ট্যাংক তৈরি করেন। ওই ট্যাংকের ভিতরে নির্মাণ সামগ্রী সরানোর জন্য শ্রমিক আল-আমিন ভিতরে প্রবেশ করে। এ সময় কোন কিছু বোঝে উঠার আগেই জ্ঞান হারিয়ে ফেলে সে। তাকে উঠানোর জন্য সুজন মিয়া উদ্ধার করতে ওই গভীরে নামে। এ সময় সেও জ্ঞান হারিয়ে পানিতে নিখোঁজ হন। এ খবর দ্রুত ছড়িয়ে পরলে স্থানীয়রা ফুলবাড়ী থানা পুলিশ ও পার্শ্ববর্তী নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসকে খবর দেন। খবর পেয়ে নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে প্রায় ৩০ মিনিট উদ্ধার অভিযান চালিয়ে তাদের উদ্ধার করে। পরে ফুলবাড়ী থানার পুলিশ ভ্যান ও অ্যাম্বুলেন্স যোগে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে জরুরী বিভাগের মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ সাইফুল ইসলাম তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

এ ব্যাপারে নাগেশ্বরী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার ইমন মিয়া জানান, প্রায় ৩০ মিনিটের অভিযানে ২০ ফুট গভীর সেফটিক ট্যাংক থেকে আমরা তাদেরকে উদ্ধার করি।
ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি (তদন্ত) নবিউল হাসান ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে জানান, সেফটিক ট্যাংকে পড়ে মৃত দুই ব্যক্তির ব্যাপারে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

ইত্তেফাক/এমআরএম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: