ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও মোহনগঞ্জে করোনা উপসর্গে ২ নারীর মৃত্যু

ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর শহর এবং নেত্রকোনার মোহনগঞ্জে করোনা উপসর্গে দুই নারীর মৃত্যু হয়েছে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় করোনা উপসর্গ নিয়ে ছেলের পর মা মারা গেছেন। ২২ মে ছেলে মারা যাওয়ার পর ১১ জুন মা মারা গেলেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনেই দুইজনের সৎকার সম্পন্ন হয়। ছেলের করোনা বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায় নি। তবে মায়ের নমুনা নেওয়া হয়েছে। ওই পরিবারের আরও চার সদস্য করোনায় আক্রান্ত।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌর এলাকার ঈদগাহ মাঠ সংলগ্ন কর্মকার পাড়ার এক যুবক চট্টগ্রাম থাকতেন। তিনি করোনা উপসর্গ নিয়ে বাড়িতে চলে আসেন। তবে তিনি বিষয়টি কাউকে বলেন নি। বাড়িতে আসার পর থেকেই তিনি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে চলতেন। এক পর্যায়ে অসুস্থ হলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদর হাসপাতালে নেওয়ার পর হৃদরোগে তিনি মারা যান বলে জানানো হয়। করোনা সন্দেহে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই তার সৎকার সম্পন্ন করা হয়। এ অবস্থায় পরিবারের সদস্যদের নমুনা দেওয়া হলে ওই যুবকের বড় ভাইসহ চারজনের করোনা পজেটিভ আসে। তবে মায়ের ফলাফল আসে নি। অসুস্থ অবস্থায় বৃহস্পতিবার ঢাকায় নেয়ার পর তিনি মারা যান। প্রশাসনকে জানানোর পর তাদের সহায়তায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাতেই শিমরাইল কান্দি শ্মশাণে ওই নারীর সৎকার করা হয়।

আরও পড়ুন: বশেমুরবিপ্রবির শিক্ষার্থীদের মেস ভাড়া ৪০ শতাংশ পর্যন্ত মওকুফ

অপরদিকে মোহনগঞ্জ ( নেত্রকোনা) সংবাদদাদাত জানান, করোনার উপসর্গ নিয়ে নাজমা বেগম (৪৫) নামের এক নারী মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় তিনি নিজ বাড়িতে আইসোলসনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ উপজেলার বড়কাশিয়া বিরামপুর ইউনিয়নের বাহাম গ্রামের বাসিন্দা শুক্কুর আলীর স্ত্রী।

মোহনগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স্রের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সুবির সরকার জানান, বৃহস্পতিবার হাসপাতালের জরুরি বিভাগে ওই রোগীকে জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে আসা হলে তার চিকিৎসা প্রদান করা হয়। করোনা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা সংগ্রহ করে বাড়িতে আইসোলসনে থাকার পরামর্শ দেওয়া হয়। শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টায় নিজ বাড়ীতে আইসোলেসনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

লাশ দাফনে মৃতের পরিবার অপারগতা প্রকাশ করলে শুক্রবার বিকাল ৩টায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তার লাশ দাফন করে। জানাজায় ইমামতি করেন ইসলামী ফাউন্ডেশনের মোঃ হাবিবুল্লাহ ও তার দল। এ সময় উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা.নূর মোহাম্মদ শামছুল আলম উপস্থিত ছিলেন। এ পর্যন্ত এই উপজেলায় করোনার আক্রান্ত হয়ে দুইজনের মৃত্যু হয়েছে।

ইত্তেফাক/এসি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: