কুষ্টিয়ায় ১৮ এলাকা রেড জোন ঘোষণা

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে কুষ্টিয়া জেলার ১৮টি এলাকাকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। করোনা প্রবণ ও অধিক সংক্রমিত কুষ্টিয়া সদর উপজেলার অন্তর্গত কিছু এলাকা ও জেলার ভেড়ামারা উপজেলার দুটি এলাকা সোমবার (১৫ জুন) রেড জোনের আওতায় এনেছে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ।

কুষ্টিয়ার সিভিল সার্জন ও করোনা প্রতিরোধ কমিটির সদস্য সচিব ডাক্তার এইচ এম আনোয়ারুল ইসলাম জানান, করোনা প্রতিরোধ ও জনস্বাস্থ্য ঝুঁকি বিবেচনায় জেলার সদর উপজেলার বেশ কিছু এলাকা লাল, হলুদ ও সবুজ হিসাবে জোন ভিত্তিক চিহ্নিত করা হয়েছে। এলাকাভিত্তিক জনসংখ্যার পাশাপাশি সংক্রমণ ও রোগীর সংখ্যা বিবেচনায় জোনভিত্তিক এলাকা চিহ্নিত করা হয়। গত ১৪ দিনে যে এলাকায় প্রতি লাখে ১০ জন রোগী শনাক্ত হয়েছে সেই এলাকাগুলো রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে।

রেড জোনের আওতায় কুষ্টিয়া সদর উপজেলার অন্তর্গত পুরো হরিপুর ইউনিয়নসহ পৌরসভার ৮টি ওয়ার্ড অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ওয়ার্ডগুলো হচ্ছে, থানাপাড়া, কুঠিপাড়া, কালীশংকরপুর, কমলাপুর, বাড়াদি, চৌড়হাস, হাউজিং ও জগতি-কুমারগাড়া।

আরো পড়ুন: হাজীগঞ্জে করোনা উপসর্গে মৃত ৩ জনের করোনা পজিটিভ

এছাড়া ভেড়ামারা উপজেলার দুটি ইউনিয়ন হচ্ছে, বাহিরচর ও চাঁদগ্রাম। অপরদিকে ভেড়ামারা পৌরসভার ওয়ার্ড ভিত্তিক এলাকাগুলোর মধ্যে বামনপাড়া, কুঠিবাজার, ফারাকপুর, নওদাপাড়া ও পূর্ব রেলগেট উল্লেখযোগ্য।

এদিকে সংক্রমণ এড়াতে জেলা, উপজেলা প্রশাসন ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সহয়তায় বিধি-নিষেধ সম্পর্কিত গণবিজ্ঞপ্তি জারিসহ চিহ্নিত রেড জোন এলাকা কঠোরভাবে লকডাউন করা হবে বলে সিভিল সার্জন জানান।

সিভিল সার্জন কার্যালয়ের করোনা কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত চিকিৎসক ডাক্তার নজমুল মুনীর জানান, জেলায় এ পর্যন্ত করেনা শনাক্ত রোগী সংখ্যা ২২৬ জন। এদের মধ্যে ৫০ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এছাড়া ৯ জন কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন এবং কুষ্টিয়ার সিডি আ্সলাম হোসেন, এডিসি সিরাজুল ইসলাম ও ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র শামিমুল ইসলাম ছানাসহ ১৬৭ জন হোম আইসোলেশনে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালক মৃণাল কান্তি দে জানান, সংক্রমণ ঠেকাতে ‘রেড জোন’ ঘোষিত এলাকায় গণবিজ্ঞপ্তি জারিসহ সকল প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা বলবৎ করা হবে।

ইত্তেফাক/এএএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: