রামগতিতে দুই মুক্তিযোদ্ধার গেজেট বাতিল

লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে দুইজন মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত গেজেট বাতিল করেছে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের জারিকৃত এক প্রজ্ঞাপনে তাদের গেজেট বাতিল করা হয়। জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) ৬৬তম সভার সিন্ধান্তের প্রেক্ষিতে মন্ত্রণালয় সারা দেশে বিমান বাহিনী ও বিজিবির ১১৮১ জন মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত গেজেট বাতিল করে। মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত গেজেট বাতিল হওয়ায় রামগতি উপজেলার বিজিবির এই দুই জন মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবার পরিজন এখন থেকে সরকারী সকল সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, ২০১৯ সালের ২০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল এর ৬৬তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ১১৮১ জন মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত থাকা গেজেট বাতিল করে ৭ জুন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন। প্রজ্ঞাপনে স্বাধীনাতা যুদ্ধের (১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১) পর বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এ যোগদানকৃত ১১৩৪ জন মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত গেজেট বাতিল করা হয়। বিজিবির এই তালিকায় রামগতি উপজেলার দুই জন মুক্তিযোদ্ধার নাম রয়েছেন। গেজেট বাতিল হয়ে যাওয়া ওই দুই জন মুক্তিযোদ্ধার ব্যাপারে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে এ সূত্রে জানা যায়।

গেজেট বাতিল হওয়া মুক্তিযোদ্ধারা হলেন, উপজেলার চর আফজল গ্রামের মতিলাল দাসের ছেলে চন্দ্রা সাগর দাস (মুক্তিযোদ্ধার গেজেট নম্বর-৬৪৮১) এবং বড়খেরী ইউনিয়নের শফিকুল আলমের ছেলে নুরুল ইসলাম (মুক্তিযোদ্ধার গেজেট নম্বর-৮৪৬৮)।
বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রামগতি উপজেলা কমান্ড এর সাবেক আহবায়ক উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল ওয়াহেদ মুরাদ বলেন, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের একটি প্রজ্ঞাপনে রামগতি উপজেলার দুইজন মুক্তিযোদ্ধার নামে থাকা গেজেট বাতিল করা হয়েছে। তবে কি কারণে বাতিল করা হয়েছে তা জানা যায়নি। উপজেলায় মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকায় আরও দুইজন নতুন ভাবে অন্তর্ভূক্ত হয়েছেন। তারা হলেন, উপজেলার চর রমিজ ইউনিয়নের চর মেহার এলাকার গোলাম মাওলার ছেলে মো. গোলাম খালেক এবং আলগী ইউনিয়নের রেজাউল হকের ছেলে মো. মফিজুল হক।

তিনি বলেন, মুক্তিযোদ্ধা ও মৃত মুক্তিযোদ্ধার পরিবারকে পুর্নবাসনের জন্য সরকার বিভিন্ন প্রকল্প চালু করেছেন। এর মধ্যে অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের বাসবভন নির্মানের জন্য মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় ‘অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য আবাসন নির্মাণ’ প্রকল্প রয়েছে।
করোনা পরিস্থিতির দুর্যোগপূর্ণ সময়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে উপজেলার সকল মুক্তিযোদ্ধারা ২ লাখ ৬০ হাজার টাকা সহায়তা দিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে মুক্তিযোদ্ধাদের দেওয়া ব্যক্তিগত এ অর্থ অনুদান হিসাবে প্রদান করেন।

উপজেলা সমাজসেবা কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় বিমান বাহিনী এবং বিজিবির ১১৮১ জন মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত গেজেট বাতিল ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন। বাতিল করা তালিকায় রামগতি উপজেলার বিজিবির দুইজন মুক্তিযোদ্ধার নাম রয়েছে। উপজেলায় সরকারি গেজেটভুক্ত ২৮৬জন মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন। এর মধ্যে মৃত মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন ১১৭ জন। সরকারের দেওয়া সম্মানী ভাতাসহ সকল সুযোগ সুবিধা পাচ্ছেন ৩ জন বিরঙ্গনাসহ ২৭৩ জন মুক্তিযোদ্ধা ও মৃত মুক্তিযোদ্ধার পরিবার।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ রামগতি উপজেলা কমান্ডের প্রশাসক মোঃ. আব্দুল মোমিন এ ব্যাপারে বলেন, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয় বিমান বাহিনী এবং বিজিবির ১১৮১জন মুক্তিযোদ্ধার নামে প্রকাশিত গেজেট বাতিল ঘোষণা করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছেন। তালিকায় এই উপজেলার বিজিবির দুইজন মুক্তিযোদ্ধার নাম রয়েছে। গেজেট বাতিল হয়ে যাওয়া ওই দুই জন মুক্তিযোদ্ধার ব্যাপারে সরকারী নিয়ম অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: