বগুড়ায় করোনার উপসর্গ নিয়ে আইনজীবী ও শিক্ষকের মৃত্যু

বগুড়ায় জ্বর, শ্বাসকষ্টসহ কোভিড-১৯ রোগীর উপসর্গে একজন আইনজীবীর মৃত্যু হয়েছে। বগুড়ার কোভিড চিকিৎসা ডেডিকেটেড মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে ওই আইনজীবীর মৃত্যু হয়। ওই আইনজীবীর নাম এমাজ উদ্দিন (৬২)। তিনি বগুড়া জলেশ্বরীতলা এলাকায় বসবাস করতেন। তাঁর গ্রামের বাড়ি পাবনার সাঁথিয়া উপজেলায়।

এ ছাড়া করোনা আক্রান্ত হয়ে সাফিউল আলম (৫৯) নামে এক শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার সকাল ৮টা ১০ মিনিটে মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

মোহাম্মদ আলী হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা খায়রুল বাশার আইসোলেশনে একজন আইনজীবীর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, এমাজ উদ্দিন নামের ওই রোগী জ্বর, শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে গত বৃহস্পতিবার আইসোলেশনে ভর্তি হন। পরীক্ষার জন্য তাঁর নমুনা সংগ্রহ করে বগুড়ার শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের পিসিআর ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হয়। তবে পরীক্ষার প্রতিবেদন এখনো আসেনি। অন্যদিকে, শ্বাসকষ্ট বেশি হলে তাঁকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) নেওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ১১টা ২০ মিনিটে তাঁর মৃত্যু হয়। কোয়ান্টাম ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকদের সহযোগিতায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফনের উপযোগী করে তার লাশ পাবনার সাঁথিয়া উপজেলায় পাঠানো হয়েছে।

অপর দিকে মৃত শিক্ষক সাফিউল আলম গাবতলী উপজেলার হামিদপুর এলাকার বাসিন্দা। তিনি গাবতলীর লাঠিগঞ্জ স্কুল ও কলেজের শিক্ষক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) ডা. খায়রুল বাশার মোমিন শিক্ষকের মৃত্যুর তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ইত্তেফাক/এমআরএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: