ইত্তেফাক সংবাদদাতাকে মামলায় ফাঁসানোর হুমকি সেই এসআই’র

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলায় দৈনিক ইত্তেফাক সংবাদদাতা ও কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক জাফর উল্যাহ পলাশকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ক্লোজড এসআই রূপন নাথ।

সাংবাদিক জাফর উল্যাহ পলাশ জানান, অপকর্ম করে ফেঁসে যাওয়া অভিযুক্ত এসআই রূপন নাথ নোয়াখালী পুলিশ লাইনে ক্লোজড হওয়ার পরও তিনি থেমে নেই। তার ব্যবহৃত মুঠোফোন এবং ফেসবুকে তিনি সাংবাদিক পলাশকে দেখে নেয়ার এবং মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দিয়েছেন।

বিষয়টি সাংবাদিক জাফর উল্যাহ পলাশ তার সহকর্মী গণমাধ্যম কর্মীদের এবং কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আরিফুর রহমানকে জানিয়েছেন। ওসি কোম্পানীগঞ্জ সাংবাদিক পলাশকে অভিযুক্ত এসআই রূপন নাথের হুমকির বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন বলে জানান।

প্রসঙ্গত, দৈনিক ইত্তেফাক ৭ জুলাই সংখ্যায় শেষ পৃষ্ঠায় ১ম কলামে ‘ভয় দেখিয়ে টাকা আদায়-কোম্পানীগঞ্জে অভিযুক্ত এসআই ক্লোজড’ শিরোনামে সংবাদ প্রকাশের পর এসআই রূপন নাথ আরো বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন। তিনি সোমবারে ক্লোজড হলেও বসুরহাট বাজারের বিভিন্ন স্থানে তাকে পোশাক পরা অবস্থায় ঘুরাঘুরি করতে দেখা গেছে। দুপুর ১টায় বসুরহাটে জিরো পয়েন্ট আরডি শপিং মলের একটি ব্যাংকের বুথ থেকে টাকা উঠাতে দেখা গেছে তাকে।

আরো পড়ুন: কোম্পানীগঞ্জে অভিযুক্ত এসআই ক্লোডজ

এসআই রূপন নাথ ২০১৭ সাথে কোম্পানীগঞ্জ থানায় এএসআই হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। ওই সময় কালেও তার নানা অপকর্মের কথা এখনও কোম্পানীগঞ্জে ব্যবসায়ীসহ নানা পেশার লোকজনের মুখে শোনা যায়।

বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, এসআই রূপন নাথ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তার একজন নিকট আত্মীয় চাকরি করার সুবাধে তিনি শুধু সাধারণ মানুষকে নয়, পুলিশের লোকজনকেও হুমকি দিয়ে বেড়ান। এছাড়াও তথ্য মন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ তার একান্ত আপনজন বলেও বলে বেড়ান। এসআই রূপন নাথের গ্রামের বাড়ী চট্টগ্রাম জেলার রাউজান উপজেলায়।

কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও দৈনিক ইত্তেফাক সংবাদদাতা জাফর উল্যাহ পলাশকে হুমকি ও মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেয়ার হুমকি দেয়ার প্রতিবাদে তাৎক্ষণিক সকল সাংবাদিকরা মঙ্গলবার সকাল ১১টায় এক জরুরি বৈঠকে একত্রিত হন। প্রেসক্লাব সভাপতি আনোয়ার তোহার সভাপতিত্বে সভায় বক্তারা অনতিবিলম্বে এ বিষয়ে তদন্ত করে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জোর দাবি জানিয়েছেন প্রশাসনের কাছে।

ইত্তেফাক/এএএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: