কুমিল্লায় ব্যবসায়ীকে পিটিয়ে হত্যা

কুমিল্লার মহানগরীর ২৩নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আলমগীর হোসেন ও তার ৩ ভাইসহ সঙ্গীয়দের হামলায় আক্তার হোসেন নামে নির্মাণ সামগ্রীর ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। হামলায় ওই ব্যবসায়ীর ভাইসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার জুম্মার নামাজ শেষে চাঙ্গিনী মোড় এলাকায় কাউন্সিলরের বাড়ির পাশে মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ওই ব্যবসায়ী ওই ওয়ার্ড যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক আলালের বড় ভাই ও চাঙ্গিনী এলাকার মরহুম আলী হোসেনের ছেলে। এ ঘটনায় কাউন্সিলরের ৩ ভাইকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

অপরদিকে একই দিন সকালে ব্রাহ্মণপাড়া থানা পুলিশ অজ্ঞাতনামা এক যুবকের মস্তকবিহীন লাশ উদ্ধার করেছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নিহত ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনের (৬০) পরিবার এবং কাউন্সিলর আলমগীর হোসেন পাশাপাশি বাড়ির বাসিন্দা। এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে ওই দুই পরিবারের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল।সাম্প্রতিক সময়ে নিহতের ছোট ভাই যুবলীগ নেতা আলাল ও কাউন্সিলর আলমগীরের মধ্যে বিরোধ চরমে পৌঁছে। এদিকে যুবলীগ নেতা আলাল বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষ্যে শুক্রবার বিকালে এলাকায় ঘুড়ি উৎসবের আয়োজন করে।

হামলায় আহত যুবলীগ নেতা আলাল জানান, ‘ঘুড়ি উৎসবে আমন্ত্রণ না পেয়ে এবং পূর্ব বিরোধের জের ধরে কাউন্সিলর আলমগীর হোসেন ও তার ৩ ভাইসহ তাদের লোকজন লোহার রড ও লাঠি নিয়ে জুম্মার নামাজ শেষ করার পর পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমাদের ওপর হামলা চালায়। আমরা দৌঁড়ে মসজিদের সামনে গেলে সেখানেও আমাকে (আলাল) ও আমার বড় ভাই ব্যবসায়ী আক্তার হোসেনের উপর তারা আবারও হামলা করে। স্থানীয়রা আহত অবস্থায় আমাদের উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পর ডাক্তার আমার ভাই আক্তার হোসেনকে মৃত ঘোষণা করেন।’

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি নজরুল ইসলাম জানান, ‘ওই ব্যবসায়ীর মৃত্যুর খবরে উভয় গ্রুপ এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনার পর থেকে কাউন্সিলর পলাতক রয়েছে। তবে তার ভাই আমির হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিল্লাল হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রাখা হয়েছে।’

অপরদিকে জেলার ব্রাহ্মণপাড়া থানার ওসি আজম উদ্দিন মাহমুদ জানান, শুক্রবার সকালে ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার সাহেবাবাদ ইউনিয়নের খাটেরা গ্রামের জনৈক খলিলুর রহমানের পুকুর পাড়ের একটি জঙ্গল থেকে অজ্ঞাতনামা এক যুবকের মস্তক বিহীন লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত চলছে। এ ব্যাপারে অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

ইত্তেফাক/কেকে

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: