নওগাঁয় বন্যার পানিতে ডুবে নিহত ৫

নওগাঁর আত্রাইয়ে বন্যার পানিতে ডুবে চারজন এবং বদলগাছীতে নদীতে গোসল করতে গিয়ে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। রবিবার দুপুরে ও শনিবার সন্ধ্যায় পৃথক উপজেলায় এই মৃত্যুর ঘটনায় ঘটেছে।

আত্রাইয়ে নিহতরা হলেন রাজশাহী জেলার বাগমারা উপজেলার ভাতঘরপাড়ার গ্রামের ইউনুছ আলী মৃধার ছেলে ইরান মৃধা (৮) ও মেয়ে ইরা আক্তার (১৬)। ইরান সিংসাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র ও ইরা সিংসাড়া স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্রী। আত্রাই উপজেলার শুকটিগাছা গ্রামে গ্রামের মোতাহার হোসেনের দুই বছর বয়সের যমজ মেয়ে হালিমা আক্তার ও হাবিবা আক্তার। অপরজন হলেন বদলগাছী উপজেলা সদরের মাস্টারপাড়ার রতন কুমার ম-লের ছেলে পলক কুমার (১৪) বদলগাছী সরকারি মডেল পাইলট হাইস্কুলের নবম শ্রেণির ছাত্র।

আত্রাই

বাগমারা উপজেলার ভাতঘরপাড়ার গ্রামের ইউনুছ আলী বাড়ির পাশে আজ দুপুরে পুকুরের পারে খেলার সময় ছোট ভাই ইরান পুকুরের পানিতে পড়ে যায়। এ সময় বড়বোন ইরা ছোট ভাইকে উদ্ধার করতে পুকুরে নামে। এক পর্যায়ে দুজনই পানির নিচে তলিয়ে যায়। পরিবারের লোকজন দীর্ঘ সময় তাদের দু’জনকে দেখতে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি করতে থাকে। এক পর্যায়ে পুকুরের পানিতে তাদের দু’জনকেই ভাসমান অবস্থায় দেখতে পান। দ্রুত তাদের উদ্ধার করে আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

আত্রাইয়ে অপর ঘটনাটি শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার আহসানগঞ্জ ইউনিয়নের শুকটিগাছা গ্রামে এই ঘটনা ঘটেছে। নিহতের স্বজন সূত্রে জানা গেছে, বিকেল ৫টার দিকে তাদের নিজ বাড়ির উঠানে হালিমা আক্তার ও হাবিবা আক্তার খেলছিল। সন্ধ্যার দিকে তাদের দুই জনকে দেখতে না পেয়ে পরিবারের লোকজন খোঁজ শুরু করে। সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে বাড়ি পাশে একটি পুকুরে তাদের ভাসমান অবস্থায় মৃতদেহ দেখতে পেয়ে তুলে নিয়ে আসেন। স্থানীয়রা দ্রুত আত্রাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই দুই শিশুকে মৃত ঘোষণা করেন।

আত্রাই থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোসলেম উদ্দিন পানিতে ডুবে পৃথক মৃত্যুর ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।

বদলগাছী

অপর ঘটনাটি রবিবার দুপুরে বদলগাছীতে ছোট যমুনা নদীতে গোসল করতে নেমে চার বন্ধু পলক কুমার মণ্ডল নিখোঁজ হয়েছে। জানা গেছে, তারা চার জন এক সাথে গোসল করতে গিয়ে নদীতে তীরে তিনজন উঠে আসতে পারলেও পলক নদীর মাঝখানে গিয়ে তলিয়ে যায়। এরপর ওই তিন বন্ধু পরিবারের লোকজনদের সংবাদ দেন। তাৎক্ষণিক পুলিশ এবং পত্নীতলা ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিলে তারা ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়। কিন্তু নদীতে তীব্র স্রোতে রাজশাহী থেকে আসা ডুবুরী দলও বিকেল ৬টা পর্যন্ত পলককে উদ্ধার করতে পারেনি।

এ সময় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন বদলগাছী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহা. আবু তাহির, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাহারুল ইসলাম, থানা ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম।

বদলগাছী থানা ওসি (তদন্ত) রফিকুল ইসলাম জানান, নদীতে ডুবে যাওয়া পলক উদ্ধার না হওয়া পর্যন্ত উদ্ধার কাজ চলবে।

ইত্তেফাক/জেডএইচডি

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: