সাভারে ভূমিদস্যুদের হামলায় বন কর্মকর্তাসহ আহত ৫

সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নে বন বিভাগের বেদখল হওয়া সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করতে গেলে বন বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মীদের উপর হামলা চালিয়েছে ভূমিদস্যুরা।

ভূমিদস্যুদের হামলায় এক বন কর্মকর্তাসহ অন্তত ৫ জন আহত হয়েছে। এসময় হামলাকারীরা বন বিভাগের নিরাপত্তা কর্মীদের অস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে গুলি বর্ষণের ঘটনা ঘটে।

সোমবার দুপুরে সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের ছোট কালিয়াকৈর এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটেছে।

এ ঘটনায় ঢাকা বন বিভাগের কালিয়াকৈর রেঞ্জের সাভার সাব-বিট কর্মকর্তা মো. মোশারফ হোসেন বাদী হয়ে সাভার মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন।

আহতরা হলেন- সহকারী বন সংরক্ষক মো. সাজেদুল আলম (৫৫), বন প্রহরী ইমরান (৩৮), ফরেস্টার দীলিপ মজুমদার (৪৫), মনির (২৮) ও ইমরান (২৫)।

হামলায় গুরুতর আহত সহকারী বন সংরক্ষক সাজেদুল আলমকে উদ্ধার করে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও বন বিভাগের কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সাভারের বিরুলিয়া ইউনিয়নের ছোট কালিয়াকৈর মৌজায় গেজেটভুক্ত সরকারি বন বিভাগের কয়েক হাজার কোটি টাকা মূল্যের ৬শ একর জমি দীর্ঘদিন ধরে একটি ভূমিদস্যু প্রভাবশালী চক্র দখল করে রেখেছে। এসব জমি দখল করে সেখানে প্রায় ১৫ হাজার চারা গাছ কেটে দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ধরনের স্থাপনা তৈরি করে আসছিলো ভূমিদদস্যু কামরুল ইসলাম আল আমিন বাহিনী।

সোমবার দুপুরে বন বিভাগের কর্মকর্তা ও কর্মীরা ওই এলাকা টহলে যান। এসময় তারা ওই সম্পত্তিতে বনবিভাগের রোপন করা চারা কেটে ফেলে সেখানে ভেকু দিয়া মাটি কাটতে দেখেন। এতে বন বিভাগের কর্মকর্তারা বাঁধা প্রদান করায় সন্ত্রাসীরা রামদা, লোহার রডসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বনকর্মকর্তাদের উপর অতর্কিতে হামলা চালায়।

এসময় সন্ত্রাসীরা সহকারী বন সংরক্ষক মোঃ সাজেদুল আলমকে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা চালায়। একই সাথে বন প্রহরী মো. ইমরান, ফরেস্টার দিলীপ মজুমদারকে লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে আহত এবং তাদের কাছে থাকা সরকারি আগ্নেয়াস্ত্র ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। আত্মরক্ষার্থে বন বিভাগের দায়িত্বরত নিরাপত্তা কর্মীরা এসময় কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি চালালে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়।

বন বিভাগের ফরেস্টার ও সাভার সাব বিট কর্মকর্তা মো. মোশারফ হোসেন জানান, আমরা বন বিভাগের সরকারি সম্পত্তি উদ্ধার করতে গেলে স্থানীয় কামরুল ইসলাম আল-আমিনের নির্দেশে আক্কাস, আরিফ, ইউসুফ ও শাজাহানের নেতৃত্বে প্রায় ৩০ থেকে ৪০ সন্ত্রাসী আমাদের উপর হামলা চালায়। তারা বন বিভাগের জায়গায় রোপন করা গাছ কেটে তছনছ করে ফেলে।

অভিযুক্ত কামরুল ইসলাম আল আমিন সাংবাদিকদের বলেন, আমরা সরকারি জমি ভূমি সংস্কার বোর্ড থেকে লীজ নিয়ে সেখানে স্থাপনা নির্মাণ করেছিলাম, কিন্তু বন বিভাগের লোকজন আমাদের ঘরবাড়ি উচ্ছেদ করে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে ঢাকা বন বিভাগের কালিয়াকৈর রেঞ্জ কর্মকর্তা একেএম আজহারুল ইসলাম বলেন, সরকারি গেজেটভুক্ত জমিতে রোপন করা প্রায় ১৫ হাজার চারা নষ্ট করে ভূমিদস্যূরা সেখানে স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত রাখে। বনের জমি রক্ষার্থে এখন পর্যন্ত ১৩ বার অভিযান চালানো হয়েছে এবং বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। কিন্তু ভূমি সংস্কারবোর্ডসহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীদের যোগসাজশে ভূমিদস্যূরা তাদের দখল কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

সোমবার আমরা বনের জমিতে টহল দিতে গেলে ভূমিদস্যূরা অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় সাভার মডেল থানায় একটি মামলা (নং-৬১) দায়ের করা হয়েছে।

সাভার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এএফএম সায়েদ জানান, এ ঘটনায় থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। হামলার ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ইত্তেফাক/জেডএইচ

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: