‘যে শিক্ষা মনুষ্যত্ব শেখায় না, সে শিক্ষা দেশ ও জাতির কোনো কল্যাণে আসে না’

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. জহিরুল হক শাকিল বলেন, যে শিক্ষায় মনুষ্যত্ব নেই ও দেশপ্রেম শেখায় না সে শিক্ষা দেশ ও জাতির কোনো কল্যাণে আসে না। আমাদের দেশে শিক্ষার হার দিন দিন বাড়লেও সুশিক্ষার অভাব রয়েছে। সেজন্যই দেশ থেকে শত চেষ্ঠা করেও দূর্নীতির বিষবৃক্ষের মূলোৎপাঠন করা সম্ভব হচ্ছে না। ফলে বিশ্বের মধ্যে একটি সম্ভাবনাময় দেশ হওয়া সত্বেও বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে বারবার হোচট খাচ্ছে। করোনা সংকট কেবল বাংলাদেশের নয়; এটি বিশ্বের স্বাস্থ্যগত ও অর্থনৈতিক সংকটের সৃষ্টি করেছে। যে দেশ যত দ্রুত এই সংকট থেকে বের হতে পারবে সে দেশ তত দ্রুত প্রগতির দিকে এগিয়ে যাবে।

সোমবার এসএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।বাগ্মীনেতা বিপীন পাল স্মৃতি পাঠাগার মিলনায়তনে হবিগঞ্জ সদর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী পইল ইউনিয়নের এসএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য ছাত্র-ছাত্রীদের বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠান পইল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ মইনুল হক আরিফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।

সুভাষ চন্দ্র দেবের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হবিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট শাহ ফখরুজ্জামান। বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সমাজসেবক মোহাম্মদ ইনসাফ উদ্দিন, তরপ সাহিত্য সংসদের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শাহ দরাজ, জেলা যুবলীগ নেতা জাহির আহমেদ, নিরঞ্জন দাশ, স্বপন অধিকারী, এনামুল হক বিপ্লব, চন্দ্র শেখর দেব রিপন, শফিকুল ইসলাম প্রমূখ।

যুক্তরাজ্যপ্রবাসী পইলের কৃতিসন্তান ও কমিউনিটি সংগঠক অজিত লাল দাশের উদ্যোগে এবারের এসএসসি পরীক্ষায় পইল ইউনিয়নের ৩০ জন মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের আর্থিক সহায়তা ও বৃত্তি প্রদান করা হয়। সমাজসেবক মোহাম্মদ ইনসাফ উদ্দিনের একাগ্রতায় এ বৃত্তি তহবিল গঠন করা হয়। পবিত্র কোরআন ও গীতা পাঠের মাধ্যমে শুরু হওয়া অনুষ্ঠানে অতিথিদের ফুলেল শুভেচ্ছা জানান পইল ইউনিয়নবাসী।

অধ্যাপক ড. জহিরুল হক শাকিল আরো বলেন, বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। ক্রমবর্ধমান প্রবৃদ্ধির হার ধরে রেখে বাংলাদেশ অবকাঠামোগত দিক থেকে সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে একটি ধর্মনিরপেক্ষ এবং ন্যায় ও সমতাভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠায় যে দেশের যাত্রা শুরু করেছিল আজকে স্বাধীনতার সুবর্নজয়ন্তির প্রাক্কালে একটি কল্যানমুখী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার দিকে আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আর এখানে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে মানসম্মত শিক্ষা। বিশ্বায়নের যুগে আমাদের ছাত্র-ছাত্রীদের বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় ঠিকে থাকতে হলে আধুনিক ও মানসম্মত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। এ শতাব্দীতে করোনার মতো আরো বড় সংকটও সামনে আসতে পারে। এসব সংকটে মানবজাতি তার মেধা ও যোগ্যতা দিয়ে ঠিকে থাকবে। যাদের সে যোগ্যতা থাকবে তারা হারিয়ে যাবে।

বক্তারা যুক্তরাজ্যে বসবাসরত হবিগঞ্জবাসীকে এধরনের একট মহতি কাজে এগিয়ে আসায় ধন্যবাদ জানান। এ বৃত্তিপ্রদানের মুল উদ্যোক্তা অজিত লাল দাশ জানান, ভবিষ্যতে এ ধরনের সহায়তার পরিসর যাতে বাড়ে সেজন্য প্রবাসী হবিগঞ্জবাসী প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

উল্লেখ্য, যুক্তরাজ্যে বসবাসরত হবিগঞ্জবাসীর আর্থিক সহযোগিতায় এ বৃত্তি প্রদান করা হয়।

ইত্তেফাক/এএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: