চিফ হুইপের পক্ষ থেকে বন্যাকবলিত ও নদীভাঙ্গন এলাকায় খাবার সহায়তা বিতরণ অব্যাহত

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ নূর-ই-আলম চৌধুরী এমপির পক্ষ থেকে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা ত্রাণ সহায়তা নিয়ে সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দত্তপাড়া, শিরুয়াইল, নিলখী, বহেরাতলা উত্তর, বহেরাতলা দক্ষিণ, বাঁশকান্দি ও ভান্ডারীকান্দি ইউনিয়নের বন্যা ও নদী ভাঙ্গন কবলিত মানুষের মাঝে শুকনো খাবার প্যাকেট, সাবান-পানিসহ বিভিন্ন ত্রান সামগ্রী বিতরণ ও বন্যাকবলিত এলাকা পরিদর্শন করেন।

এ সময় উপজেলা নিবার্হী অফিসার মোঃ আসাদুজ্জামান, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান বিএম আতাউর রহমান আতাহার, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফাহিমা আক্তার, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আ. লতিফ মোল্লা, সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. সেলিম, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন খান (তোতা), সাধারণ সম্পাদক শংকর চন্দ্র ঘোষ, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি ইলিয়াস পাশা, সাধারণ সম্পাদক মো. খায়রুজ্জামান খান, যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ ও ছাত্রলীগ সহ আরো অনেকেই উপস্থিত ছিলেন।

অপরদিকে বন্দরখোলা ইউনিয়ন পরিষদের একাধিকবার সফল চেয়ারম্যান মোঃ নিজাম উদ্দিন বেপারী করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি উপেক্ষা করে জীবনের মায়া ত্যাগ করে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় মানুষের পাশে থেকে তাদের খোঁজ-খবর নেওয়াসহ প্রতিনিয়ত খাবার সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেন।

এদিকে পদ্মার চরাঞ্চল বন্দরখোলা ইউনিয়নের নুরুউদ্দিন মাদবরকান্দি এসইএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ৩ তলা ভবন, কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের একটি ৩ তলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কাম সাইক্লোন সেন্টার ভবন নদীতে বিলীন হয়েছে। এছাড়া ভাঙ্গন ঝুকিতে রয়েছে বন্দরখোলা ইউনিয়ন পরিষদ ভবন, প্রাথমিক বিদ্যালয়, কমিউনিটি ক্লিনিকসহ গুরুত্বপূর্ন স্থাপনা। এখনো পানিবন্দি রয়েছে হাজার হাজার পরিবার। ভাঙ্গন প্রতিরোধে চীফ হুইপের নির্দেশনায় জিও ব্যাগ ডাম্পিং চালিয়ে যাচ্ছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। চীফ হুইপের পক্ষ থেকে দূর্গতদের মাঝে খাবার সহায়তা বিতরন অব্যাহত রয়েছে।

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: