মির্জাপুরে বন্যা দুর্গত এলাকায় বাড়ছে জন দুর্ভোগ, ঈদে আনন্দ নেই পরিবারের মধ্যে

টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বন্যার অবনতি হওয়ায় ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাট ডুবে দুর্গত এলাকায় জন দুর্ভোগ বাড়ছে। বিশেষ করে আঞ্চলিক সড়কগুলো তলিয়ে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। ঈদে আনন্দ নেই বন্যা কবলিত এলাকায় পরিবারের মধ্যে। মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবদুল মালেক মোস্তাকিম জানিয়েছেন, বিভিন্ন এলাকায় বানভাসী পরিবারগুলোকে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, উপজেলা পরিষদ এবং উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

আজ শনিবার মির্জাপুর পৌরসভার এবং কয়েকটি ইউনিয়নে খোঁজ গিয়ে জানা গেছে, বন্যা কবলিত এলাকার লোকজন চরম বিপাকে পড়েছেন। উপজেলার ১১ ইউনিয়নের অধিকাংশ আঞ্চলিক সড়ক, হাট-বাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, চিকিৎসালয়, ইউনিয়ন পরিষদ পানিতে ডুবে রয়েছে। বংশাই নদীর ত্রিমোহন বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. একাব্বর হোসেন ব্রিজ এলাকায় বন্যা কবলিত কয়েক শতাধিক পরিবার পলিথিন মুড়িয়ে ঝুঁপরি তৈরী করে আশ্রয় নিয়েছে।

ফতেপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. আব্দুর রউফ জানান, পৌরসভা, ফতেপুর, লতিফপুর, মহেড়া, জামুর্কি, বহুরিয়া, ভাওড়া, ভাদগ্রাম, ওয়ার্শি, বানাইল এবং আনাইতারা ইউনিয়নের আঞ্চলিক সড়কগুলো তলিয়ে গেছে। রাস্তা-ঘাটের পাশাপাশি মৎস খামার, ফসলি জমি, সবজি, গাছপালা, গবাদি পশুর ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। প্রতিটি এলাকায় তিনি ত্রাণ সহায়তা বাড়ানোর জন্য প্রশসনের নিকট জোর দাবি জানান।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. একাব্বর হোসেন এমপি এবং উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মীর এনায়েত হোসেন মন্টু বলেন, বন্যা কবলিত এলাকার প্রতিটি পরিবারকে সহায়তা করার জন্য তালিকা সংগ্রহের কাজ শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে দলীয় ভাবে এবং প্রশাসন থেকে ত্রান সহায়তা দেয়া হয়েছে।

ইত্তেফাক/আরকেজি

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: