তালায় করোনার উপসর্গ নিয়ে ২ জনের মৃত্যু

সাতক্ষীরার তালায় সর্দি, জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় দু’জনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার (৩১ জুলাই) রাতে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে তারা মারা যান।

মৃত ব্যক্তিরা হলেন তালা উপজেলার সারসা গ্রামের অনিল কৃষ্ণ দাসের ছেলে রাধাপদ দাস (৫৫) ও নওয়াপাড়া গ্রামের ওজিয়ার সরদারের স্ত্রী আরিফা খাতুন (৩৫)।

মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিকেল অফিসার ডা. মানস কুমার মন্ডল জানান, জ্বর ও শ্বাসকষ্টসহ করোনার উপসর্গ নিয়ে শুক্রবার (৩১ জুলাই) দুপুরে মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন তালা উপজেলার শারসা গ্রামের রাধাপদ দাস। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ৯টার দিকে তিনি মারা যান।

অন্যদিকে, করোনার উপসর্গ নিয়ে একই উপজেলার নওয়াপাড়া গ্রামের আরিফা খাতুন শুক্রবার রাত ১০টার দিকে সাতক্ষীরা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আইসোলেশনে ভর্তি হন। এরপর সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১২টার দিকে তিনিও মারা যান। মৃত দুই ব্যক্তিরই নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

আরো পড়ুনঃ চীনকে মোকাবেলায় ভারতের দেখানো পথেই হাঁটছে যুক্তরাষ্ট্র

সাতক্ষীরা সিভিল সার্জন অফিসের মেডিকেল অফিসার ডা. জয়ন্ত সরকার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, স্বাস্থ্য বিধি মেনে তাদের লাশ দাফনের অনুমতি দেওয়া হয়েছে। একই সাথে লকডাউন করা হয়েছে তাদের বাড়ি। এ নিয়ে, সাতক্ষীরায় করেনার উপসর্গ নিয়ে আজ পর্যন্ত মারা গেছেন অন্তত ৪৮ জন। আর করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন আরো ২২ জন।

এদিকে তালা থানা পুলিশের এস আই শাহজাহান কবীরের শরীরে করোনা পজিটিভ এসেছে। শনিবার (১ আগস্ট) বিকালে তালা স্বাস্থ্য বিভাগ ও পুলিশ প্রশাসন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। এ নিয়ে জেলায় শনিবার পর্যন্ত ৯৫ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. ফারাহ ফেরদৌস বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ পর্যন্ত উপজেলায় ২২ নারীসহ মোট ৯৫ জন করোনা পজিটিভ রোগী শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে সুস্থ হয়েছে ২৭ জন এবং মৃত্যু হয়েছে দুইজনের। এছাড়া গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় নতুন করে আরো ১৮ জন করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছে। এ নিয়ে জেলায় শুক্রবার পর্যন্ত ৭৩৬ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন।

ইত্তেফাক/এমএএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: