বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণের ভিডিওচিত্র ধারণ, অভিযুক্ত গ্রেফতার

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ধারণকৃত ধর্ষণের ভিডিওচিত্র সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগে তানভির আহম্মেদ (২৪) নামের এক যুবকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। গ্রেফতার হওয়া তানভির আহম্মেদ পার্বতীপুর উপজেলার পাটিকাঘাট গ্রামের আতিয়ার রহমানের ছেলে।

গত রবিবার (২৩ আগস্ট) রাত সোয়া ৯টায় ধর্ষণের শিকার তরুণীর দায়েরকৃত থানার এজাহার সূত্রে জানা যায়, তানভির আহম্মেদের সাথে মুঠোফোনের মাধ্যমে পরিচয় হয়। ওই পরিচয়ের সূত্র ধরে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তানভির আহম্মেদ ওই তরুণীকে নিয়ে চলতি বছরের গত ২২ জুন ফুলবাড়ী পৌর এলাকার এসকে টাওয়ার নামের আবাসিক হোটেলের ৪০১ নং কক্ষে অবস্থান করে। সেখানে ওই তরুণীকে জোরপূর্বক ধর্ষণসহ ধর্ষণের ভিডিওচিত্র গোপনে মোবাইল ফোনে ধারণ করে। এরপর থেকেই ধর্ষণের ধারণকৃত ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেওয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন স্থানে একাধিকবার ধর্ষণ করে।

একইভাবে ভয়ভীতি দেখিয়ে গত রবিবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে সোয়া ১২ টায় একই আবাসিক হোটেলের ৪০১ নং কক্ষে ওই তরুণীকে নিয়ে গিয়ে তরুণীটিকে ধর্ষণের চেষ্টা চালায় তানভির। কিন্তু ওই তরুণী কৌশলে তার সহপাঠী বন্ধু বাদশা মিয়াকে মুঠোফোনে ক্ষুদেবার্তা দিয়ে ঘটনাটি জানায়। পরে বাদশা আলীসহ থানা পুলিশ ওই আবাসিক হোটেল থেকে তরুণীকে উদ্ধার এবং তানভিরকে গ্রেফতার করে।

আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত এমপি ডা. মনসুরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় স্থানান্তর

এসকে টাওয়ার আবাসিক হোটেলের সত্ত্বাধিকারী সানোয়ার হোসেন জানান, গ্রেফতার হওয়া তানভির কিংবা ওই তরুণীর নামে তার হোটেলে কোন কক্ষ বরাদ্দ দেওয়া হয়নি। তারা হোটেলে এসে রুম দেখার সময়ই তাদের আটক করা হয়েছে।

দায়েরকৃত মামলার সাক্ষী ওই তরুণীর সহপাঠী বাদশা আলী জানান, গত রবিবার (২৩ আগস্ট) দুপুরে তার বান্ধবীর মুঠোফোনে ক্ষুদেবার্তা পেয়ে পুলিশের সহায়তায় সোয়া ১২ টায় এসকে টাওয়ার আবাসিক হোটেল থেকে তার বান্ধবীকে উদ্ধারসহ তানভিরকে গ্রেফতার করা হয়।

ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. ফখরুল ইসলাম বলেন, গত রবিবার (২৩ আগস্ট) দুপুর সাড়ে ১২টায় ওই যুবতীর বন্ধু বাদশা আলী ও স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় যুবতীসহ তানভিরকে এসকে টাওয়ার থেকে উদ্ধার করা হয়। রাত সোয়া নয়টায় তরুণীটি বাদী হয়ে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন ও পর্নোগ্রাফি নিয়ন্ত্রণ আইনে থানায় মামলা দায়ের করেছেন। সোমবার সকালে আসামি তানভিরকে জেলহাজতে এবং ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য দিনাজপুর এম. আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

ইত্তেফাক/এএএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: