বিশ্ববাজারে বাড়ছেই স্বর্ণের দাম

বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দাম বেড়েই চলেছে। চলমান অর্থনৈতিক মন্দায় মূল্যবান ধাতুতে বিনিয়োগ নিরাপদ মনে করছে বিনিয়োগকারীরা। সোমবার বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম শূন্য দশমিক ৮ শতাংশ বেড়ে ১ হাজার ৯১৬ দশমিক ৯১ ডলারে পৌঁছেছে। এর আগে ২০১১ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৯২০ ডলারে উঠেছিল। অর্থাত্ স্বর্ণের দামে রেকর্ড হতে আর ৩ দশমিক ৩৯ ডলার বাকি। যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের মধ্যকার নতুন করে ছড়িয়ে পড়া উত্তেজনা, করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় দফা সংক্রমণ ও ডলারের দাম কমে যাওয়ায় স্বর্ণকে নিরাপদ বিনিয়োগ বলে বেছে নিচ্ছেন। ফলে হু হু করে বাড়ছে স্বর্ণের দাম। আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের দাম নির্ধারণ হয় আউন্স হিসাবে। এক আউন্স স্বর্ণ ৩১ দশমিক ১০৩ গ্রামের সমান।

গত বছরের শেষের দিকে আন্তর্জাতিক বাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ছিল ১ হাজার ৪৫৪ ডলার। এরপর করোনা ভাইরাসের প্রকোপের মধ্যে ফেব্রুয়ারিতে ১ হাজার ৬৬০ ডলারে গিয়ে ঠেকে দাম। এর পর দাম হু হু করে বাড়ছেই।

বিশ্লেষকরা বলছেন, বিশ্বের অনেক অঞ্চলে করোনার সংক্রমণ দ্বিতীয় দফায় বাড়ছে। এর ফলে অর্থনৈতিক অনিশ্চয়তা বাড়ছে। এতে দরপতন ঘটছে শেয়ারবাজারে। তাই অস্থির এ সময়ে ব্যবসায়ীরা নিরাপদ হিসেবে মূল্যবান ধাতব পদার্থে বিনিয়োগ সরিয়ে নিচ্ছেন। ডলার দুর্বল হওয়ায় এটিও স্বর্ণের দাম বৃদ্ধিতে প্রভাব ফেলছে। তাছাড়া অর্থনীতি সুরক্ষায় অনেক দেশ বিপুল অঙ্কের প্রণোদনা দিচ্ছে, সেই সঙ্গে কমাচ্ছে সুদের হার। এ কারণে ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিনিয়োগের চেয়ে এখন ধাতব পদার্থে বিনিয়োগ বাড়াচ্ছে। এদিকে বিশ্ববাজারে উচ্চ দামের প্রভাব দেশের বাজারেও পড়েছে। দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম এর আগে কখনো এত বেশি দেখা যায়নি।

ইত্তেফাক/এএম

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: