প্রকাশিত হলো শান্তনু বিশ্বাসের ‘খড়কুটো’

this is caption

জি-সিরিজের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান অগ্নিবীণার ব্যানারে প্রকাশিত হলো স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের সর্বকনিষ্ঠ সৈনিক শান্তনু বিশ্বাস-এর তৃতীয় একক অ্যালবাম ‘খড়কুটো’।

শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর একটি রোস্তোরাঁয় অ্যালবামটির মোড়ক উন্মোচন করেন খ্যাতিমান সঙ্গীতশিল্পী ফাতেমা-তুজ-জোহরা, জি-সিরিজের কর্ণধার নাজমুল হক ভুঁইয়া, জি-সিরিজের জনসংযোগ কর্মকর্তা সুমন মোস্তফা ও শান্তনু বিশ্বাস।

অ্যালবামে গান রয়েছে ১১টি। সবগুলো গানের কথা, কণ্ঠ ও সুর দিয়েছেন শান্তনু বিশ্বাস নিজেই। পুরো অ্যালবামটির সঙ্গীতায়োজন করেছেন বাপ্পা মজুমদার ও সুদীপ্ত সাহা। গানের শিরোনামগুলো হলো- পাথরঘাটার ঘণ্টা বাজে, নও কাছে নও দূরে, পলাশের বাগানে, শোন গল্পটা এখানে, সামনে পেছনে রোজ তাকে দেখি, নীল দিয়ে বোনা, বসন্ত শেষ হয়ে গেলে, বলি খেলা, প্রচারে প্রসার ও ছাতিমতলা।

শান্তনু বিশ্বাস বলেন, “পেশাগত জীবনে আমি পুরোদস্তুর কর্পোরেট। এর বাইরে সংগীতচর্চা আমার নেশা।”

তিনি বলেন, “আমার ইচ্ছা, কথার ওপর জোর দিয়ে ঐতিহ্যবাহী বাংলা গানের ওপর নিরীক্ষা চালিয়ে নিত্য নতুন সমকালীন গান করার। ‘খড়কুটো’ অ্যালবামে মূলত আমাদের দৈনন্দিন জীবনযাপনের চালচিত্র তুলে ধরার চেষ্টা করেছি।”

তিনি জানান, অ্যালবামের ‘খড়কুটো’ শিরোনামের গানটি স্প্যানিশ ভাষায় লেখা একটি লোকজ সংগীত থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে  লেখা হয়েছে। আশা  করছি, অ্যালবামের সবগুলো গান শ্রোতাদের আকৃষ্ট করবে।

২০০৬ সালে এটিএন মিউজিক থেকে শান্তনু বিশ্বাসের কথা ও সুরে সুবীর নন্দী ও ইন্দ্রানী সেনের দ্বৈত অ্যালবাম বের হয়। ২০০৭ সালে ইমপ্রেস অডিও ভিশন থেকে বের হয় ‘ঝিনুক ঝিনুক মন’। ২০০৮ সালে অগ্নিবীণার ব্যানারে বের হয় বাপ্পা মজুমদারের সঙ্গে যৌথ অ্যালবাম ‘বহমান’। ২০০৯ সালে ‘চিরকুট’ শিরোনামে প্রথম একক অ্যালবাম প্রকাশিত হয়। সর্বশেষ ২০১১ সালে প্রকাশিত হয় শিল্পীর দ্বিতীয় একক অ্যালবাম ‘পোস্টম্যান’।

বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতের তারা মিউজিক চ্যানেলেও নিয়মিত সংগীত পরিবেশন করেন শিল্পী শান্তনু বিশ্বাস।

অআ/

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: