স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার, শ্রীলেখার সমালোচনা

কলকাতা, ১৩ জানুয়ারি- স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনের ফ্লেক্সে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেখে সমালোচনা করলেন ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্র। ফেসবুকের ভাইরাল ছবি দেখে হতবাক অভিনেত্রী। অটোর পেছনে লাগানো হয়েছে ওই পোস্টার। যা স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিন উপলক্ষেই তৈরি করা হয়েছে।

যাতে লেখা, স্বামী বিবেকানন্দ-এর ১৫৮-তম জন্ম দিবস উদযাপন। কিন্তু সেই পোস্টারে মণিষীর মুখ কোথায়? তাঁর পরিবর্তে এ তো রাজনীতিক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি দেওয়া পোস্টারে! দার্জিলিং জেলা কমিটির তৃণমূল যুব কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই পোস্টারটি তৈরি করা হয়েছে। সুযোগ বুঝে আবার কেউ কেউ ওই অটোর পেছনে লাগানো পোস্টারকে ফ্রেমবন্দি করতেও ছাড়েননি।

ব্যাঙ্গাত্মক বাক্যবাণে কটাক্ষ করে শেয়ারও করেছিলেন ফেসবুকে। মুহূর্তের মধ্যে যা ভাইরাল হয়ে যায়। নজর এড়ায়নি অভিনেত্রী শ্রীলেখা মিত্রর। তিনিও ওই ছবি ফেসবুকে শেয়ার করে ঠাট্টা করেছেন।

আরও পড়ুন :  আমরা দু’জন বিশ্বাসের উপর বেঁচে আছি: বনি

শ্রীলেখা বরাবরই স্পষ্টভাষী। সোজাসুজি কথা বলতে ভালোবাসেন। এক্ষেত্রেও তার অন্যথা হল না। রাজ্যের শাসকদলের এহেন কর্মকাণ্ড নিয়ে বিদ্রুপ করলেন। বিভ্রান্তিমূলক ওই পোস্টারের ছবি শেয়ার করে শ্রীলেখা লিখেছেন, “আহা… চোখ, মন আরও যা যা আছে সব জুড়িয়ে গেল দেখে। ছবিটি তিনি সারণ দত্ত বলে যাঁর সোশ্যাল-ওয়াল থেকে নিয়েছেন তাঁর নামও উল্লেখ করেছেন ওই পোস্টে।

অভিনেত্রীর ফেসবুক ওয়ালে ভাইরাল ওই বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার দেখে নেটিজেনরাও কটাক্ষ করতে শুরু করেছেন। কেউ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধে, ভাইপো নাকি মালপো বলছেন, আবার কেউ বা এই গোটা বিষয়টিকে ‌‌‌‌আস্ত অশিক্ষার নিদর্শন’ হিসেবেও ব্যাখ্যা করেছেন।

প্রসঙ্গত, এর আগেও তৃণমূলের দুই সাংসদ-অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী এবং নুসরত জাহানকে নিয়ে মন্তব্য় করেছিলেন শ্রীলেখা। তখন তিনি বলেছিলেন, ‌‘টিকটক তো বন্ধ হয়ে গেল, এবার সাংসদরা কোথায় মুখ দেখাবেন?’ খোঁচা দেওয়া এমন মন্তব্যে শোরগোল পড়ে যায় নেটদুনিয়ায়। এবার স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনে তাঁর নাম করে বিভ্রান্তিমূলক পোস্টার শেয়ার করে ফের কটাক্ষ করলেন টলিউড অভিনেত্রী।

সূত্র: বিডি২৪লাইভ

আর/০৮:১৪/১৩ জানুয়ারি

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: