ভয়াবহ নির্যাতনের শিকার জেল থেকে পালানো ২ ফিলিস্তিনি বন্দি

ইসরায়েলের জিলবোয়া কারাগার থেকে পালানোর পর গ্রেপ্তার হওয়া চার ফিলিস্তিনি বন্দিদের মধ্যে দুজন নৃশংস নির্যাতনের শিকার বলে জানিয়েছেন তাদের আইনজীবীরা। গত সপ্তাহে হেফাজতে নেওয়ার পর তাদের সাথে প্রথম সাক্ষাতে তারা তাদের আইনজীবীদের জানান তারা শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন এবং নির্যাতনের শিকার হচ্ছে।

গ্রেফতারের পাঁচ দিন পর তাদের আইনজীবীদের কাছে বন্দীদের প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে নেয় ইসরায়েলি গোয়েন্দা সংস্থা। এর পরই ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের (পিএ) বন্দি বিষয়ক প্রতিরক্ষা পক্ষের আইনজীবী খালেদ এবং রুসলান মহাজনেহ বুধবার মোহাম্মদ ও মাহমুদ আল-আরদাহের সাথে পৃথকভাবে সাক্ষাৎ করেন।

জেল থেকে পালানো ৪ ফিলিস্তিনির ওপর চলছে নৃশংস নির্যাতন

খালেদ মহাজনেহ ফিলিস্তিন টিভিকে একটি আবেগঘন সাক্ষাৎকারে বলেন, মক্কেল মোহাম্মদ আল-আর্দাহ এর সাথে কথা বললে তিনি জানায়, খাবার, ঘুম এবং চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে।

বন্দি খালেদের বক্তব্য অনুযায়ী তিনি অত্যাচারের চরম পর্যায়ে আছেন। পুনরায় গ্রেফতারের পর মোহাম্মদকে নাজারেথ জিজ্ঞাসাবাদ কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, যেখানে তাকে খুব কুৎসিত ভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছিল।

এর আগে ইসরায়েলের জিলবোয়া কারাগার থেকে পালানোর পর গ্রেপ্তার হওয়া চার ফিলিস্তিনিকে নির্যাতনের মাধ্যমে মেরে ফেলা হতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে নাদি আল-আসির সেন্টার।

এই সংগঠনটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল এই বন্দিকে নৃশংসভাবে মারধর করা হয়েছে। তার শরীরে এখন শুধু নির্যাতনের চিহ্ন। নির্যাতনে অসুস্থ হওয়ার পর তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ইত্তেফাক/এএইচপি

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: