বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ‘নরকের দুয়ার’!

আশগাবাত, ১০ জানুয়ারি – তুর্কমেনিস্তানের মরুভূমিতে থাকা ‘নরকের দুয়ার’ নামে পরিচিত বিশাল একটি অগ্নিকুণ্ডকে নিভিয়ে ফেলার নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট। অগ্নিকুণ্ডটি মূলত একটি জমে থাকা গ্যাসের গর্ত। কয়েক দশক ধরে এটি জ্বলছে। পরিবেশগত ও স্বাস্থ্যগত কারণে এবং একই সঙ্গে গ্যাস রপ্তানি বাড়ানোর জন্যই এটি বন্ধ করে দিতে চান প্রেসিডেন্ট গুরবাঙ্গুলী বার্দিমুহামেদা। খবর বিবিসির।

তিনি এক টেলিভিশন ভাষণে বলেন, ‘আমরা মূল্যবান প্রাকৃতিক সম্পদ হারাচ্ছি যার জন্য আমরা উল্লেখযোগ্য মুনাফা পেতে পারি এবং আমাদের জনগণের কল্যাণে তাদের ব্যবহার করতে পারি। তাই আগুন নেভাতে সমাধান খুঁজে বের করতে হবে।’

কারাকুম মরুভূমিতে ‘দারভাজা’ নামের এই গর্তটিকে ঘিরে রয়েছে নানা রহস্য। অনেকে বিশ্বাস করেন যে, ১৯৭১ সালে সোভিয়েত সামরিক মহড়ার সময় করা ভুলের কারণে এটি তৈরি হয়েছিল। কিন্তু কানাডার অভিযাত্রী জর্জ কাউরুনিস ২০১৩ সালে গর্তের গভীরতা পরীক্ষা করে বলেছিলেন এটি কীভাবে শুরু হয়েছিল তা আসলে কেউ জানে না।

স্থানীয় ভূ-তাত্ত্বিকদের মতে, বিশাল গর্তটি ১৯৬০ এর দশকে তৈরি হয়েছিল। তবে শুধুমাত্র ১৯৮০-এর দশকে এটির ভেতরে আগুন জ্বলে ওঠে। বর্তমানে অগ্নিকুণ্ডটি তুর্কমেনিস্তানের অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন আকর্ষণ।

এর আগেও আগুন নেভানোর জন্য অসংখ্যবার চেষ্টা করা হয়েছে ‘নরকের দুয়ার’ নামে পরিচিত এই বিশাল অগ্নিকুণ্ডকে।

২০১০ সালেও বার্দিমুহামেদা বিশেষজ্ঞদের আগুন নেভানোর জন্য একটি উপায় খুঁজে বের করার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

২০১৮ সালে, প্রেসিডেন্ট আনুষ্ঠানিকভাবে এটির নামকরণ করেন ‘শাইনিং অফ কারাকুম’।

সূত্র: সমকাল
এম ইউ/১০ জানুয়ারি ২০২২

বন্ধ হয়ে যাচ্ছে ‘নরকের দুয়ার’!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: