বোতাম চাপলেই ভোট পড়ে বিজেপির প্রতীকে!

this is caption

ভারতে লোকসভা নির্বাচনের আর মাত্র একদিন বাকি। এরইমধ্যে ভোটের আগেই দেশটিতে ইলেক্ট্রিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভোট কারচুপির অভিযোগ উঠেছে। কারণ, আসামে দেখা গেছে মেশিনের যেকোনো বোতামে চাপ দিলেই বিজেপির দলের প্রার্থীর পক্ষে ভোট পড়ে।

৭ এপ্রিল ভারতে লোকসভা বা জাতীয় নির্বাচন শুরু হচ্ছে। নির্বাচনকে সামনে রেখে আসামে ইভিএম পরীক্ষা সময় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাটি জানাজানি হলে ব্যাপক হই চই পড়ে যায় রাজনৈতিক মহলে৷

এই ঘটনায় তদন্তের দাবি করেছেন আসামের মুখ্যমন্ত্রীতরুণ গগৈ৷

তবে নির্বাচন কমিশন বলেছে, এ ঘটনার কঠিন তদন্ত করা হবে।

৭ এপ্রিল আসামে প্রথম দফায় লোকসভা ভোট। সেকারণে আসামের জোড়হাটজেলায় রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের সামনে পরীক্ষা চলছিল ইলেকট্রিক ভোটিংমেশিনে৷ কমিশনের ভাষায় এ পরীক্ষাকে ‘মক পোল’ বলা হয়।

আসামে ইভিএমে সব সরঞ্জমাদি ইতোমধ্যে পৌঁছে গেছে। মেশিনগুলো যখন পরীক্ষা করা হচ্ছিল, তখন প্রচুরসংখ্যক ইভিএমে গড়বড় ধরা পড়ে৷

মেশিন পরীক্ষার সময় দেখা যায়, ইভিএমের যেকোনো বোতামে চাপ দিলেই রহস্যজনকভাবে, ভোট পড়ে বিজেপি প্রার্থীর পক্ষে। দু-একবার নয়, যেকেনো মেশিনের বোতামে চাপ দিলেই বিজেপির প্রার্থীর প্রতীকে ভোট পড়ে।

এ এই ঘটনায়রীতিমতো তোলপাড় শুরু হয়ে যায় রাজনৈতিক মহলে৷

সাথে সাথে আসামের মুখ্যমন্ত্রী এ ঘটনা জানিয়ে দেন রাজ্যের প্রধান নির্বাচনী কর্মকর্তার কাছে। এরপর তড়িঘড়ি করে সমস্ত ইভিএম সিল করে দেওয়া হয়।

এ সম্পর্কে জোড়হাট লোকসভা কেন্দ্রের ডেপুটি কমিশনার বিশাল বসন্তের বলেন, “কারিগরি কারণে কিছু মেশিনে ত্রুটি ধরা পড়েছে৷এখন সমস্ত ইভিএম কমিশনের  হেফাজতে রয়েছে।”

তিনি আরো জানান, এই ত্রুটি ধরাপড়ার কারণে প্রস্তুতকারী সংস্থার ইঞ্জিনিয়ারদের দিয় দুটি স্তরেপরীক্ষা করানো হচ্ছে৷

এদিকে এই ঘটনার ফলে কংগ্রেসসহ অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলো ক্ষেপে যায়। বিজেপির বিরুদ্ধে সমালোচনার ঝড় ওঠে।

তবে শেষপর্যন্ত আসামের মুখ্য নির্বাচনী কর্মকর্তা বিজেন্দ্র জানিয়েছেন, “কেন্দ্রের বুথে পাঠানোর আগেই সমস্ত ইভিএম  রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতিনিধিদের সামনে পরীক্ষা করিয়েই পাঠানো হবে৷ কোনো খারাপ মেশিন বুথে পাঠানো হবে না।”

শাতৈ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: