দায়িত্ব পালনের সময় ঘুম, ফের বিতর্কের মুখে মার্কিন পুলিশ

পুলিশি হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুর পর পুরো যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে চলে সহিংস আন্দোলন। ওই আন্দোলনের সময় যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগোতে দায়িত্বপালন না করে মার্কিন পুলিশ সদস্যেদের বিরুদ্ধে ঘুমানোর অভিযোগ উঠেছে। শুধু ঘুমানোই না আন্দোলনের সময় নিজেদেরকে আড়াল করে কমপক্ষে তের পুলিশ সদস্য স্থানীয় কংগ্রেসনাল ক্যাম্পেইন অফিসের ভেতর গিয়ে কফি এবং পপকর্ন বানিয়েও খেয়েছেন । এমনটি জানিয়েছেন শিকাগো শহরের মেয়র লরি লাইটফুট এবং মার্কিন কংগ্রেস প্রতিনিধি ববি রাশ।

এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস প্রতিনিধি ববি রাশ শিকাগো ট্রিবিউনকে বলেন, গত ১ জুন তারা আমার অফিসের ভেতর ঘুমিয়েছিলেন। তারা আমার মাইক্রোওয়েভে পপকর্ন বানিয়েও খেয়েছেন। আর ওইদিকে তখন আন্দোলনকারীরা বাইরে তাণ্ডব ও লুটপাট চালাচ্ছিলেন।

রাশ জানায়, অফিসে লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে এমন খবর পেয়ে নির্বাচনী প্রচারণার অফিসের সিসিটিভির ফুটেজ দেখার সময় পুলিশের এমন কর্মকাণ্ডের কথা জানতে পারেন তিনি।

রাশ বলেন, তারা খুব বিনোদনের মধ্যে ছিলেন এবং তাদের এই চিন্তা ছিল না যে শহরে কি হচ্ছে। শিকাগো শহরের মেয়র লরি লাইটফুট এ নিয়ে প্রকাশ্যে ক্ষমা চেয়ে বলেন, এটা আমার জন্য লজ্জার বিষয়। এই ঘটনায় তদন্ত করা হবে বলেও জানিয়েছেন শিকাগোর মেয়র লরি লাইটফুট।

গত ২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রের পুলিশ হেফাজতে মারা যান জর্জ ফ্লয়েড নামের এক কৃষ্ণাঙ্গ যুবক। সেইদিনই পুলিশ তাকে প্রতারণার অভিযোগে গ্রেফতার করেছিলো। জর্জকে গ্রেফতারের পর হাঁটু দিয়ে তার গলা চেপে ধরেন ডেরেক চাওভিন নামের এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তা। এভাবে অন্তত আট মিনিট তাকে মাটিতে চেপে ধরে রাখা হয়। এক প্রত্যক্ষদর্শীর তোলা ভিডিও ফুটেজে দেখা যায়, জর্জ ফ্লয়েড নিঃশ্বাস না নিতে পেরে কাতরাচ্ছেন এবং বারবার একজন শ্বেতাঙ্গ পুলিশ কর্মকর্তাকে বলছেন, ‘আমি নিঃশ্বাস নিতে পারছি না।’ এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হয় মুহূর্তেই। এর প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে চলে সহিংস আন্দোলন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে পুলিশি হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ যুবক মৃত্যুর প্রতিবাদ জানানো হয়।

ইত্তেফাক/এআর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: