মিয়ানমারের বিমান হামলায় শিশুমৃত্যু যুদ্ধাপরাধ: অ্যামনেস্টি

মিয়ানমারে রাখাইনে জাতিগত নিধনে চালানো বিমান হামলাকে ‘যুদ্ধাপরাধ’ বলে আখ্যা দিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি। একই সঙ্গে মিয়ানমারের সামরিক বাহিনীর নৃশংস অভিযানে নারী ও শিশু হত্যাকাণ্ডে বিচারের জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে তোলার আহ্বান জানিয়েছে সংস্থাটি। চলতি বছরের মার্চ এবং এপ্রিলে এই হামলার ঘটনা ঘটে। খবর আলজাজিরার।

গতকাল প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে অ্যামনেস্টি জানায়, মিয়ানমারের সেনাবাহিনী চীন রাজ্যের বহু গ্রামে বোমা হামলা চালিয়েছে, এমন তথ্য-প্রমাণ পেয়েছে তারা। বর্বর হামলায় বেশ কয়েকজন হতাহত হন। এছাড়া অন্য একটি গ্রামে ৭ এপ্রিলের অভিযানে সাত জন ঘটনাস্থলেই নিহত হন। জীবন বাঁচাতে বহু মানুষ গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে গেছে বলে জানা গেছে।

করোনা ভাইরাস মহামারির মধ্যে বৌদ্ধ ধর্মালম্বী রাখাইনে বিচ্ছিন্নতাবাদী গোষ্ঠী দমনে নিরীহ গ্রামবাসীদের ওপর এই হামলা চালায় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী, যারা তাতমাদাও হিসেবেও পরিচিত। একে বৈষম্যমূলক হামলা উল্লেখ করেছে সংস্থাটি। রাখাইনে অধিকাংশ নাগরিক মুসলিম এবং চীন রাজ্যে খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের বলে প্রতিবেদনে উঠে এসেছে। ২০১৭ সালে দেশটিতে সেনা অভিযানের কারণে বহু রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়।

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: