ভারতের করোনা টিকা মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ

ভারতের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন ‘কোভ্যাক্সিন’র মানবদেহে প্রথমধাপের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়েছে। শুক্রবার মানবদেহে ভ্যাক্সিনটির প্রথম প্রয়োগ শুরু হয়।

হরিয়ানা প্রদেশের রোহতকে পোস্ট-গ্রাজুয়েট ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সে প্রথম দফায় তিনজন স্বেচ্ছাসেবীর দেহে ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ করা হয়। প্রাথমিকভাবে ভ্যাকসিন নেয়া তিন স্বেচ্ছাসেবীর শরীরে এখন পর্যন্ত কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি।

পোস্ট-গ্রাজুয়েট ইন্সটিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সের পালমোনারি অ্যান্ড ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিনের জ্যেষ্ঠ অধ্যাপক ও কো-প্রিন্সিপাল গবেষক ধ্রুব চৌধুরী বলেন, করোনার সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের আগে ওই তিন স্বেচ্ছাসেবীর লিভারের কার্যকারিতা এবং করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের জন্য ৮ স্বেচ্ছাসেবীর মধ্যে থেকে তিনজনকে বাছাই করা হয়।

তিনি বলেন, তিনজনই ভ্যাকসিনটি ভালোভাবে নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত কোনও সমস্যা দেখা দেয়নি। ছেড়ে দেয়ার আগে তাদের দুই ঘণ্টা পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছিল।

তিনি আরও বলেন, তবে ভ্যাকসিনটি প্রয়োগের পর তাৎক্ষণিকভাবে অ্যালার্জির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছিল। অন্য কোনও ধরনের ব্যথা শুরু হয় কিনা তা জানার জন্য আমরা ওই তিন স্বেচ্ছাসেবীকে আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণ করবো।

ডাঃ ধ্রুব চৌধুরী বলেন, সুরক্ষা ও প্রতিক্রিয়া জানার জন্য ভ্যাকসিনটি প্রাণীর দেহে পরীক্ষায় সফল হয়েছে। প্রাণীর দেহে পরীক্ষা চালানোর প্রক্রিয়াটি মানব দেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের প্রথম ধাপে প্রবেশ করেনি।

তিনি বলেন, এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে অন্তত ছয়মাস সময় লাগবে। তবে ভ্যাকসিনটির সুরক্ষা এবং অ্যান্টিবডি সম্পর্কে চূড়ান্ত মূল্যায়ন ভারত বায়োটেকের সুরক্ষা বোর্ড তৈরি করবে।

আরও পড়ুন: ভ্যাকসিনের তথ্য হ্যাকিংয়ের অভিযোগ ভিত্তিহীন: রাশিয়া

হরিয়ানার স্বাস্থ্যমন্ত্রী অনিল ভিজ এক টুইট বার্তায় বলেছেন, শুক্রবার পিজিআইয়ের রোহতকে ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিনের মানবদেহে পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়েছে। প্রথম ধাপে তিনজনের দেহে ভ্যাকসিনটি প্রয়োগ হয়েছে। কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। দ্য হিন্দু।

ইত্তেফাক/আরআই

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: