হায়া সোফিয়াকে ঘিরে দ্বন্দ্বে গ্রিস-তুরস্ক, চলছে কথার লড়াই  

তুরস্কের বিখ্যাত ঐতিহ্য জাদুঘর হায়া সোফিয়াকে মসজিদে রুপান্তর করায় নিন্দা জানিয়েছেন গ্রিস। এনিয়ে তুরস্ক গ্রিসের মধ্যে চলছে তুমুল কথার লড়াই। সম্প্রতি হায়া সোফিয়াকে ঘিরে দেশ দুইটির মধ্যে উত্তেজনা ‘তুঙ্গে’।

গ্রিসের ক্ষোভের প্রেক্ষিতে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িব এরদোয়ান শনিবার বলেন, আমরা দেখতে পাচ্ছি, যেসব দেশ সাম্প্রতিক দিনগুলোতে বেশি কথা বলছে তাদের লক্ষ হায়া সোফিয়া নয়, তাদের লক্ষ্য এই অঞ্চলে তুর্কি জাতি ও মুসলিমরা।

এদিকে হায়া সোফিয়া মসজিদে রুপান্তর করায় গ্রিসের শহরে তুরস্কের পতাকা পোড়ানো হয়েছে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী কাইরিয়াকোস মিতসোকাতিস শুক্রবার বলেছেন, ইস্তাম্বুলে যা ঘটছে তা ‘বলপ্রয়োগ প্রদর্শন নয়, তা দুর্বলতার প্রমাণ’।

সেইসঙ্গে তিনি তুরস্ককে একটি ‘সমস্যা সৃষ্টিকারী’ দেশ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

এর জবাবে তুরস্কের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে বলেন, ইসলামের প্রতি গ্রিস আবারো শত্রুতা প্রদর্শন করলো।

গত শুক্রবার ৮৬ বছর পর হায়া সোফিয়ায় প্রথমবারের মতো জুম্মার নামাজ পড়া হয়। এর আগে ১০ জুলাই দেশটির এক আদালত সাবেক এই গির্জাকে জাদুঘরে পরিণত করা হয়নি বলে রায় দেয়। এর পরেই তুরস্কের ইসলামপন্থী সরকার একে মসজিদ হিসেবে ব্যবহারের পক্ষে আদেশ জারি করে।

দেড় হাজার বছরের পুরনো হায়া সোফিয়া এক সময় ছিল বিশ্বের সবচেয়ে বড় অর্থোডক্স গির্জা, পরে তা পরিণত হয় মসজিদে, তারও পর একে জাদুঘরে রূপান্তরিত করা হয়।

তবে নতুন করে মসজিদ করায় গ্রিস ছাড়াও রাশিয়া, সাইপ্রাস নিন্দা জানিয়েছে। বিবিসি, আল জাজিরা, টিআরটি।

ইত্তেফাক/এসআর

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: