অচেনা রূপের হজের আনুষ্ঠানিকতা

একেবারেই ভিন্ন পরিস্থিতি, ভিন্ন চিত্র। এমন হজ আগে আর কখনো দেখেনি বিশ্ব। করোনা মহামারির বাস্তবতায় শুরু হতে যাচ্ছে পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা।

যেখানে প্রথমবারের মতো অন্য দেশ থেকে হজ পালনে সৌদি আরব যেতে পারছেন না ধর্মপ্রাণ মুসলিমরা। এবারের হজে শুধু মাত্র তারাই অংশ নিতে পারছেন যারা সৌদি আরবে অবস্থান করছেন।

সৌদি আরবের নাগরিক ও বর্তমানে সেখানে অবস্থান করা অন্য দেশের নাগরিকসহ মোট ১০ হাজার মানুষ হজে অংশ নিচ্ছেন।

বুধবার থেকে শুরু হচ্ছে পবিত্র হজের আনুষ্ঠানিকতা। আর বৃহস্পতিবার কাবা শরিফে নতুন গিলাফ পরানো হবে। আনুষ্ঠানিকভাবে কাবা শরিফের নতুন গিলাফ ইতোমধ্যেই হস্তান্তর করা হয়েছে।

এদিকে কোভিড-১৯ থেকে রক্ষা পেতে সর্বোচ্চ সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নিয়েছে সৌদি সরকার। হজের জন্য মনোনীতদের প্রত্যেকের করোনা পরীক্ষা করানো হয়েছে। হজ শুরুর আগে দুই ধাপে কোয়ারেন্টাইনে থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়েছে সবার জন্য।

পবিত্র আরাফাতের ময়দান ও মিনার মাঝে হাজিদের জন্য তৈরি করা হয়েছে তাঁবু।

এবার হজের সময় মাস্ক পরতে হবে সবাইকে। এ কথা আগেই জানিয়ে দিয়েছে আয়োজক কর্তৃপক্ষ।

অপরদিকে ভাইরাসের সংক্রমণ যাতে ছড়াতে না পারে সেজন্য জমজমের পবিত্র পানি পানেও থাকছে কঠোরতা। এবার সবার জন্য জমজমের পানি সরবরাহ করা হবে প্লাস্টিকের প্যাকেটে। সেই পানিই পান করতে হবে সবাইকে।

এছাড়া বিশেষ পরিস্থিতির কারণে শয়তানকে পাথর ছোঁড়ার আনুষ্ঠানিকতাতেও থাকছে নতুনত্ব। এবার সর্বোচ্চ ৫০ জন হাজি এক সঙ্গে পাথর নিক্ষেপ করতে পারবেন। তবে সে পাথর সাধারণ কোনো পাথর নয়। এবার জীবাণুমুক্ত পাথর সরবরাহ করা হবে হাজিদের।

সূত্র: সৌদি গেজেট ও ডয়েচে ভেলে

ইত্তেফাক/জেডএইচ

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: