মিয়ানমারের নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার দাবি সু চির দলের

নেপিডো, ৯ নভেম্বর- মিয়ানমারের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি (এনএলডি) দেশটির সাধারণ নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাওয়ার দাবি করেছে। সোমবার দলটি বলছে, পরবর্তী সরকার গঠনের জন্য পার্লামেন্টের বেশির ভাগ আসনে জয় পেয়েছে তারা।

২০১১ সালে সেনাশাসনের কবল থেকে বেরিয়ে গণতন্ত্রের যাত্রা শুরু হয় মিয়ানমারে। এরপর দ্বিতীয়বারের মতো দেশটিতে রোববার সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেসরকারি ফলাফলে এনএলডি এগিয়ে রয়েছে বলে স্থানীয় গণমাধ্যমগুলো আভাস দিয়েছে।

এনএলডির মুখপাত্র মিও নিন্ত বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে বলেন, অভ্যন্তরীণ প্রতিবেদনে দেখা গেছে অং সান সু চি নেতৃত্বাধীন ন্যাশনাল লিগ ফর ডেমোক্রেসি পার্লামেন্টে ৩২২ আসনে জয় পেয়েছে। যদিও দেশটির নির্বাচন কমিশন এখন পর্যন্ত আনুষ্ঠানিকভাবে নির্বাচনের ফল ঘোষণা করেনি।

তিনি বলেন, আমরা জনগণকে ধন্যবাদ জানাই। জনগণের জন্য, দলের জন্য এটি উৎসাহজনক নির্বাচনী ফল।

সোমবার আরও পরের দিকে মিয়ানমারের সাধারণ নির্বাচনের ফল ঘোষণার কথা রয়েছে। রোববারের নির্বাচনকে দেশটির নেত্রী অং সান সু চির এনএলডি নেতৃত্বাধীন নব্য-গণতান্ত্রিক সরকারের প্রতি গণভোট হিসেবে দেখা হচ্ছে।

দেশটিতে নির্বাচন ব্যাপক জনপ্রিয় হলেও সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যার অভিযোগে জর্জরিত মিয়ানমারের সরকারের ভাবমূর্তি বিশ্ব পরিমণ্ডলে তলানিতে ঠেকেছে।

মিয়ানমারের পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষে ৪২৫ ও উচ্চকক্ষে ১৬১ আসন রয়েছে। ৫০ বছরের বেশি সময়ের সেনাশাসনের কবল থেকে মুক্ত হয়ে ২০১৫ সালে দেশটিতে প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত সাধারণ নির্বাচনে অং সান সু চির এনএলডি ভূমিধস জয় পায়। ওই বছর দলটি সংসদের মোট ৩৯০ আসনে বিজয়ী হয়। এবারের সেই সংখ্যা ছাড়িয়ে যাওয়ার প্রত্যাশা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মিও নিন্ত।

নির্বাচনের ফলের ব্যাপারে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি দেশটির সেনাসমর্থিত ইউনিয়ন সলিডারিটি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট পার্টি (ইউএসডিপি)।

সূত্র: জাগোনিউজ

আর/০৮:১৪/৯ নভেম্বর

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: