মার্কিন জ্বালানি খাতে সাইবার হামলার পর জরুরি অবস্থা জারি

ওয়াশিংটন, ১০ মে – যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড় জ্বালানি পাইপলাইনে র‌্যানসামওয়্যার (ফেরত দেওয়ার বিনিময়ে অর্থ দাবি) সাইবার হামলার পর জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছে জো বাইডেন প্রশাসন।

গতকাল রোববার (৯ মে) একটি বড় পাইপলাইন বন্ধ করার পর জ্বালানি ঘাটতির শঙ্কা দেখা দিয়েছে। সরবরাহ অব্যাহত রাখতেই জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ গণমাধ্যম।

জানা যায়, কলোনিয়াল পাইপলাইনের মাধ্যমে দিনে ২৫ লাখ ব্যারেল জ্বালানি সরবরাহ করা হয়। যা ইস্ট কোস্টে সরবরাহ করা ডিজেল, গ্যাসোলিন ও জেট ফুয়েলের মোট ৪৫ শতাংশ। সাইবার অপরাধী গ্যাংয়ের হামলার পর এটি পুরোপুরি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বর্তমানে যা মেরামতের কাজ চলছে। জরুরি অবস্থা জারির কারণে সড়ক দিয়ে জ্বালানি পরিবহন সম্ভব হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আজ সোমবার (১০ মে) জ্বালানির মূল্য ২ থেকে ৩ শতাংশ বাড়ার সম্ভাবনা আছে। তবে এটি দীর্ঘ সময় চলতে থাকলে পরিস্থিতি আরও খারাপ অবস্থার দিকে ধাবিত হবে।

বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করেছে, ডার্ক সাইড নামের সাইবার-অপরাধীদের দল এই র‌্যানসামওয়্যার হামলা চালিয়েছে। বৃহস্পতিবার তারা কলোনিয়াল নেটওয়ার্কে অনুপ্রবেশ করে। পরে প্রায় ১০০ জিবি সমান উপাত্ত জিম্মি করে রাখে।

উপাত্ত জব্দ করে কয়েকটি কম্পিউটার ও সার্ভারে তা আটকে রাখে তারা। শুক্রবার তারা এগুলো ফেরত দেওয়ার বিনিময়ে অর্থ দাবি করেছে। যদি তা না-দেওয়া হয়, তবে ইন্টারনেটে সেসব ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

সূত্র : ইত্তেফাক
এন এইচ, ১০ মে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: