পায়ের হাল ফ্যাশনে সেরা এখন ‘টো রিং’

টো রিং পরলে পায়ের সৌন্দর্যটাই যেন পালটে যায়। সাজগোজটা সম্পূর্ণ মনে হয়।পায়ের আঙুলে টো রিং পরার স্টাইল নারীদের ফ্যাশনে অনেক যুগ ধরেই রয়েছে। এই ফ্যাশনে মেতেছে আজকের আধুনিকারাও। তবে আগেকার দিনে অবশ্য রুপার টো রিংই বেশি চলত। আজকাল সেই ফ্যাশনে এসেছে অনেক বাড়তি যোগ। পুঁথি, মেটাল, হরেক রকম ডিজাইনের টো রিং। তবে কোন আঙুলে পরলে মানাবে ভালো, কেমন হবে টো রিং, এই নিয়ে নানা প্রশ্ন থাকে মনে। রইল কিছু টিপস্, যাতে আপনার পায়ে সৌন্দর্য বাড়িয়ে তোলে টো রিংটি।

টো রিং যেমন পায়ের সৌন্দর্য বাড়ায় , তেমনই খুলতে পরতেও সুবিধা। মর্ডান হোক বা ট্র্যাডিশনাল, যে কোনও পোশাকের সঙ্গে দিব্য মানায়। আপনি যদি জিন্স পরতে বেশি ভালোবাসেন, তার সঙ্গে টো রিং পরতে পারেন। মন্দ লাগবে না। বরং সবার নজর আকর্ষণ করবে। টো রিংয়ে আপনি পাবেন বিভিন্ন ভ্যারাইটি। ছোটো, বড় বিভিন্ন ডিজাইনের।

ছোটো ডিজাইনের টো রিং : ছোটো ডিজাইনের টো রিং পায়ে আনে এক অন্য সৌন্দর্য, যা খুবই আকর্ষণীয় দেখায়। সেইসঙ্গে আপনাকে দেবে ক্যাজুয়াল লুকও। অনেকেই এখন এই ধরনের টো রিং পরেন। আধুনিক ডিজাইনের টো রিং পরে নিন, আপনার পছন্দ মতো। অল্প বয়সিদের মধ্যে এই ধরনের টো রিং এখন খুব ফ্যাশনেবল।

মাঝারি ডিজাইনের টো রিং : মাঝারি ধরনের টো রিং পরেও বেশ ভালো দেখায়। বিশেষ করে যাদের চেহারা একটু গোলগাল। রুপোর তৈরি টো রিং পরতে পারেন বা মেটালের। বেছে নিতে পারেন স্টোনযুক্ত টো রিংও। সেইসঙ্গে পায়ের আঙুলে পরে নিন স্টোনের বিভিন্ন রঙের সঙ্গে ম্যাচিং নেল কালার।

বড় ডিজাইনের টো রিং : বড় সাইজের টো রিং পরলে আপনি পাবেন এলিগেন্ট লুক। সকলের নজর কাড়বে এমন আংটি। বিশেষ কোনও অনুষ্ঠান বা জমজমাট পার্টি, পরে নিন বড় টো রিং – স্টোন, মেটাল বা রুপোর ডিজাইনের। জমকালো সাজগোজের সঙ্গে টো রিংটি মানাবেও ভালো।

বেছে নিতে পারেন এই ধরনের টো রিং-
১. বিড ডিজাইনের টো রিং। প্রত্যেক দিন পরে থাকার জন্য এই ধরনের টো রিং বেশ সুন্দর।

২. রুপোর তৈরি সাদামাটা ডিজাইনের টো রিং যেমন ভালো মানাবে, তেমনি ঘন ডিজাইনের রিং পরতে পারেন।

৩. রুপোর সঙ্গে স্টোনের কম্বিনেশনটাও মন্দ হবে না। রুপোর ডিজাইনের মাঝখানে মস্ত স্টোন দেওয়া টো রিং ট্র্যাডিশনাল পোশাকের সঙ্গে ভালো মানাবে।

৪. প্রিয় মানুষটির সঙ্গে দেখা করার সময় পরে নিতে পারেন হার্ট শেপের টো রিং।

৫. একটিই আংটি পরতে হবে এমনটা নয়। আপনি চাইলে দুটিও টো রিং পরতে পারেন। সেক্ষেত্রে বেছে নিতে পারেন মেটালের টো রিং।

৬. অ্যাঙ্কলেটের সঙ্গে টো রিং। ব্যাপারটা বেশ সুন্দর! পায়ে অ্যাঙ্কলেটও পরা হবে, একইসঙ্গে টো রিংও।

৭. মেটালের তৈরি ফ্লোরাল ডিজাইনের টো রিং এখন খুব ফ্যাশনেবল।

এম ইউ

পায়ের হাল ফ্যাশনে সেরা এখন ‘টো রিং’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: