rankmath ল্যাপটপের যত্নআত্তি

ল্যাপটপের যত্নআত্তি

this is caption

দিন দিন আমরা হয়ে উঠছি প্রযুক্তি নির্ভর। প্রযুক্তির অংশ হিসেবে পোর্টেবল কম্পিউটার ল্যাপটপ ব্যবহারও বাড়ছে। ছোট্ট যন্ত্রটি হয়ে উঠেছে যাপিত জীবনের অংশ। কিন্তু ল্যাপটপ ব্যবহারে কিছুটা সচেতন হতে হবে। কারণ এর যন্ত্রাংশ নষ্ট হলে বিপদে পড়তে হয়।

ল্যাপটপ যত গরম হবে ততই সমস্যা হবে। এজন্য চেষ্টা করবেন যতটুকু সম্ভব ল্যাপটপ ঠাণ্ডা রাখতে। বিছানা, বালিশ কিংবা কুশন টেবিল হিসেবে ব্যবহার করে ল্যাপটপ চালাবেন না। এর ফলে ল্যাপটপ আরো বেশি গরম হয়ে ওঠে। ল্যাপটপের ভেতর ঠাণ্ডা রাখতে ব্যবহার করতে পারেন কুলিং প্যাড। বাজারে অ্যানটেক, টারগাস কোম্পানির কুলিং ফ্যান পাওয়া যায়। ল্যাপটপ শক্ত মসৃণ স্থানে ব্যবহার করুন।

সময়ের সাথে ল্যাপটপের ব্যাটারির আয়ু কমতে থাকবে। কত দ্রুত এটি ঘটবে তা নির্ভর করে আপনার ব্যবহারের ওপর। শুধু ব্যাটারি দিয়ে যখন চালাবেন তখন খেয়াল রাখবেন ব্যাটারির প্রায় চার্জ শেষ হওয়া পর্যন্ত চালাবেন। পাওয়ার পুরোপুরি শেষ হওয়ার আগে চার্জ দিতে শুরু করলে ব্যাটারির আয়ু কমে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। সুযোগ থাকলে মেইন পাওয়ার দিয়ে ল্যাপটপ চালানোই উত্তম। সপ্তাহে এক থেকে দুবার ব্যাটরির চার্জ শেষ করে নতুন করে চার্জ দিন।

ল্যাপটপের হার্ড ড্রাইভকে রিফরম্যাট করুন। এরপর পুণরায় অপারেটিং সিস্টেমে ইনস্টল করুন। প্রয়োজনীয় ডাটা ও ফাইলের ব্যাকআপ নিতে ভুলবেন না। সময় সাপেক্ষ কাজটি বছরে একবার করলেই আপনি অনেক সুবিধা পাবেন।

ডেস্কটপের চাইতে ল্যাপটপ অনেক বেশি স্পর্শকাতর। তাই সাবধানে এটিকে বহন করতে হবে। বহন করার জন্য এমন ব্যাগ ব্যবহার করুন  যা আপনার ল্যাপটপকে সর্বোচ্চ সুরক্ষা দেবে।

আআ/রর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: