মাস্ক পরলে করোনার ঝুঁকি ৬৫ ভাগ কমে

মুখে মাস্ক পরলে করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি শতকরা ৬৫ ভাগ পর্যন্ত কমে যায় বলে দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার ডেভিস চিলড্রেনস হাসপাতালের এক গবেষণায় এ তথ্য মিলেছে। এর আগে গবেষকরা মনে করতেন, আক্রান্ত ব্যক্তির মুখে মাস্ক থাকলে তা কেবল আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে সংক্রমণ ছড়ানো প্রতিরোধ করে। কিন্তু নতুন গবেষণায় দেখা গেছে, মুখে মাস্ক পরলে তা আক্রান্ত ব্যক্তি থেকে সংক্রমণ ছড়াতে যেমন ভূমিকা রাখে, তেমনি মাস্ক পরলে সুস্থ ব্যক্তিরাও সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা পেতে পারেন।

মাস্কের মতোই সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার বিধানও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে খুবই কার্যকরী এক পদ্ধতি বলে প্রমাণিত হয়েছে। গবেষকরা বলছেন, সামাজিক দূরত্বের এই নিয়ম করোনা ভাইরাসের ঝুঁকি ৯০ ভাগ পর্যন্ত কমাতে পারে। বিজ্ঞানীদের মতে, করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ রোধে এই দুইটি নিয়ম ভালোভাবে মেনে চললেই করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের ঝুঁকি অনেকাংশে কমানো যায়। মূলত আক্রান্ত ব্যক্তি যখন হাঁচি-কাশি দেয় কিংবা কথা বলে; তখন তার থেকে ‘ড্রপলেট’ বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে। আক্রান্ত ব্যক্তি মাস্ক পরা থাকলে এই ধরনের ড্রপলেট যেমন ছড়াতে পারে না তেমনি অন্যরা মাস্ক পরা থাকলে এই ড্রপলেটের মাধ্যমে সংক্রমিতও হয় না। আর সামাজিক দূরত্ব মেনে চললেও এই ধরনের ড্রপলেট থেকে অনেকাংশেই রক্ষা পাওয়া সম্ভব।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার ডেভিস চিলড্রেনস হাসপাতালের গবেষক ড. ডিন ব্লুমবার্গ বলেন, যারা বলে থাকেন যে তাদের মাস্কের ওপর বিশ্বাস নেই, তারা মূলত বিজ্ঞানের তথ্য প্রমাণের ওপরই অবিশ্বাস করছেন। এটা মধ্যাকর্ষণ শক্তিকে অবিশ্বাস করার মতোই একটা বিষয়।

গবেষকরা বলছেন, একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, শ্বাসপ্রশ্বাসের ড্রপলেটের ক্ষুদ্র সংস্করণ বা অ্যারোসল কণা দীর্ঘসময় বাতাসে ভেসে থাকতে পারে। এটি কয়েক মিটার পর্যন্ত ভেসে যেতে পারে। এটি যেসব ঘরে আলো-বাতাস কম বা বিভিন্ন যানবাহনের আবদ্ধ জায়গায় বেশি মারাত্মক হতে পারে। এমনকি এসব জায়গায় ১ দশমিক আট মিটার পর্যন্ত বিস্তার লাভ করতে পারে। অস্ট্রেলিয়ার ব্রিসবেনের কুইন্সল্যান্ড ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির বিজ্ঞান এবং পরিবেশ প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক লিডিয়া মোরাউসকা বলেন, করোনা ভাইরাসে বাতাসে ভেসে বেড়ানোর বিষয়টি শতভাগ নিশ্চিত।

ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার ডেভিস চিলড্রেনস হাসপাতালের আরেক জন অধ্যাপক ড. উইলিয়াম রিসটেনপার্ট বলেন, বদ্ধ ঘরে কয়েক ঘণ্টা পর্যন্ত জীবিত থেকে বাতাসে ভেসে বেড়াতে পারে করোনা ভাইরাস। এ কারণে বদ্ধপরিবেশ এড়িয়ে চলা উচিত। তবে অনেক ক্ষেত্রেই মুখে মাস্ক পরা থাকলে এ ধরনের পরিবেশেও ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যেতে পারে।—ডেইলি মেইল

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: