করোনার উপসর্গ নিয়ে আরো ১১ জনের মৃত্যু

মহামারি করোনার উপসর্গ জ্বর, গলা ব্যথা, সর্দি-কাশি ও শ্বাসকষ্টে গতকাল বিকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় আরো ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে। করোনা ভাইরাস পরীক্ষার জন্য মৃতদের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এদের দাফন করা হয়েছে। মৃতদের মধ্যে আইনজীবী, শিক্ষক ও ব্যবসায়ী রয়েছে।

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজে (শেবাচিম) হাসপাতালে করোনার উপসর্গে মারা যাওয়া তিন জন হলেন— নগরীর ১নং ওয়ার্ডের শাহনেওয়াজ (৬৪), ২৯নং ওয়ার্ডের খাইরুল বাসার (৪৫) ও বরগুনার বামনা লক্ষ্মীপুর এলাকার আবদুল রশিদ (৮০)।

হাসপাতালের পরিচালক ডা. মো. বাকির হোসেন জানান, এ নিয়ে গত ২৯ মার্চ থেকে এ হাসপাতালের ৮৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। যার মধ্যে ৩১ জনের করোনা পজেটিভ। সাতক্ষীরার তালায় জ্বর,সর্দি, কাশি, শ্বাসকষ্টে মো. বজলুর রহমান গাজী (৫২) নামে এক ব্যবসায়ীর মৃত্যু হয়েছে। তিনি সদর ইউনিয়নের বারুইহাটী গ্রামের বাসিন্দা।

সুনামগঞ্জের ছাতকে ইমদাদুল ইসলাম (দরাজ মাস্টার) নামে এক শিক্ষকের মৃত্যু হয়েছে। তিনি উপজেলার ভাতগাওয়ের হায়দরপুর গ্রামের বাসিন্দা এবং মন্ডলপুর ও হায়দরপুওে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাবেক শিক্ষক। রাজশাহী নগরে নিজ বাড়িতে কৃষ্ণ কমল দত্ত (৮৫) নামে এক প্রবীণ আইনজীবীর মৃত্যু হয়েছে। তার পৈতৃক বাড়ি নাটোরের সিংড়া উপজেলার দমদমা গ্রামে। তিনি একাই রাজশাহীর বাসায় থাকতেন।

এছাড়াও নগরের ঘোড়ামারা এলাকার বুলবুলি (৬০) নামে একজন মারা গেছেন। অপরদিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে উপসর্গ নিয়ে আরও চার জনের মৃত্যু হয়েছে। এরা হলেন— জেলার চান্দিনার ইদ্রিস মিয়া (৬০), আবদুল মান্নান (৬৫), সদরের হনুফা বেগম (৪৬) ও লাকসামের শাহানারা বেগম (৬০)।

ইত্তেফাকের ব্যুরো, জেলা প্রতিনিধি ও উপজেলা সংবাদদাতাদের পাঠানো খবরের আলোকে প্রতিবেদনটি তৈরি করা হয়েছে।

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: