উচ্চ শিক্ষায় পাল্টে যাচ্ছে নারী পোশাক শ্রমিকদের জীবন

পাঁচ বছর আগে বাংলাদেশের একটি পোশাক কারখানায় দৈনিক ১২ ঘণ্টার শিফটে কাজ করতেন নারী পোশাক শ্রমিক সাদেকা বেগম। সংসারের আয়ের প্রধান উৎস ছিলেন তিনি। কিন্তু এখন সেই সাদেকা বেগমই স্নাতক পাস করা উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত একজন নারী। বর্তমানে ইউনিসেফের হয়ে শিক্ষানবিশ হিসেবে কাজ করছেন তিনি। সাদেকার ইচ্ছা নারী শ্রমিকদের শিশুদের জীবনমান উন্নয়নের জন্য কাজ করবেন তিনি । তবে একজন পোশাক শ্রমিক হয়ে কিভাবে স্নাতক পাস করলেন সাদেকা বেগম?

জানা গেছে, চট্টগ্রামের এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন নামের একটি বিশ্ববিদ্যালের বিশেষ প্রোগ্রামের আওতায় উচ্চ শিক্ষা অর্জন করেছেন সাদেকা। সাদেকা চায় তার মতো অন্যান্য নারীরাও যাতে উচ্চ শিক্ষিত হয়ে নেতৃত্বে আসতে পারেন এবং পোশাক কারখানায় নারীদের অধিকার আদায়ের জন্য কাজ করতে পারেন।

উচ্চ শিক্ষা অর্জনের বিষয়ে সাদেকা বলেন, শিক্ষা কিভাবে একজন মানুষকে পরিবর্তন করতে পারে সেটির একটি উদাহরণ আমি। জানা গেছে, সাদেকা সহ আরো চার নারী পোশাক শ্রমিক এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেন থেকে স্নাতক শেষ করে বেরিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয়টিতে ২০১৬ সালে ওই বিশেষ প্রোগ্রাম চালু হওয়ার পর বিভিন্ন পেশার সুবিধাবঞ্চিত ৪৭০ জন নারীকে উচ্চ শিক্ষার সুযোগ দেওয়া হয়। শুধু উচ্চ শিক্ষাই নয় অধ্যয়নকালে প্রতি মাসে নির্দিষ্ট ভাতাও পান সেখানে পড়ুয়া নারী শ্রমিকরা।

এ বিষয়ে এশিয়ান ইউনিভার্সিটি ফর উইমেনের উপাচার্য নির্মলা রাও বলেন, বাংলাদেশের পোশাক শিল্পের নারী কর্মকর্তা তৈরির লক্ষ্যেই আমরা এমন প্রোগ্রাম চালু করেছিলাম।

জাতিসংঘের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশের ৮০ ভাগ নারী পোশাক শ্রমিকই সেলাইয়ের কাজ করেন। বেশিরভাগ শ্রমিকই কারখানায় কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করার সুযোগ পান না।

এ বিষয়ে তৈরি পোশাক শিল্প মালিকদের শীর্ষ সংগঠন বিজিএমইএর প্রেসিডেন্ট রুবানা হক বলেন, স্নাতক পাস করা এমন নারীদের ম্যানেজমেন্ট পর্যায়ে কাজ করতে দেখলে অন্যান্য নারী শ্রমিকরাও বড় স্বপ্ন দেখতে পারবেন। আল জাজিরা।

ইত্তেফাক/এআর

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: