সংসদের ইতিহাসে প্রথম বিশেষ অধিবেশন শুরু

ঢাকা, ০৮ নভেম্বর- বাংলাদেশের ইতিহাসে সংসদের প্রথম বিশেষ অধিবেশন শুরু হলো। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ ‘মুজিববর্ষ’ উপলক্ষে আয়োজিত এই বিশেষ অধিবেশন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে রবিবার (৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ছয়টায় শুরু হয়। এটি বিশেষ অধিবেশন হলেও এর প্রথম কার্যদিবস চলবে সাধারণ অধিবেশনের মতো। অধ্যাদেশ উপস্থাপন, কয়েকটি খসড়া আইন ও বিলের প্রতিবেদন উপস্থাপনের জন্য এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। কাল সোমবার (৯ নভেম্বর) রাষ্ট্রপতির স্মারক বক্তৃতার মাধ্যমে শুরু হবে বিশেষ অধিবেশনের কার্যক্রম।

অধিবেশনের শুরুতে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বিশেষ অধিবেশনে সবাইকে স্বাগত জানান। এ সময় তিনি বিশেষ অধিবেশন আহ্বানের কারণ উল্লেখ করেন। তিনি জানান, বিশেষ অধিবেশনের মূল কার্যক্রম ৯ নভেম্বর শুরু হবে। ওইদিন রাষ্ট্রপতি সংসদে ভাষণ দেবেন। এছাড়া সংসদ নেতা শেখ হাসিনাসহ সংসদ সদস্যরা আলোচনার মাধ্যমে জাতির পিতাকে বিনম্র শ্রদ্ধা জানাবেন। বৃহস্পতিবার পর্যন্ত আলোচনা চলমান থাকবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

পরে তিনি চলতি অধিবেশনের জন্য সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মনোনয়ন দেন। তারা হলেন—আবুল কালাম আজাদ, বীরেন শিকদার, শামসুল হক টুকু, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ এবং উম্মে কুলসুম স্মৃতি।

স্পিকার, ডেপুটি স্পিকারের অনুপস্থিতিতে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্যরা সংসদের বৈঠক পরিচালনা করেন।

সংসদ কক্ষে জাতির জনকের ছবিসহ এটাই সংসদের প্রথম বৈঠক। উচ্চ আদালতের নির্দেশে সম্প্রতি অধিবেশন কক্ষে জাতির পিতার প্রতিকৃতি স্থাপন হয়েছে। এ প্রতিকৃতি স্থাপন দেশের সংসদের ইতিহাসে অন্যতম মাইলফলক হয়ে থাকবে বলে স্পিকার সংসদকে জানান।

সাবেক প্রতিমন্ত্রী একেএম মোশারফ হোসেন, গণপরিষদের সাবেক সদস্য সৈয়দ একেএম এমদাদুল বারী, সাবেক সংসদ সদস্য মমতাজ বেগম, নুরুল ইসলাম, খন্দকার গোলাম মোস্তফা, শামছুল হক তালুকদারের মৃত্যুতে সংসদ শোক জানিয়েছে। শোক জানিয়েছে অ্যাটর্নি জেনারেল অ্যাডভোকেট মাহবুবে আলম, সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, হেফাজতে ইসলামির আমির আল্লামা শাহ আহমদ শফী, একুশে পদকপ্রাপ্ত সাহিত্যিক রশীদ হায়দার, বিশিষ্ট সাংবাদিক কবি আবুল হাসনাত, সংসদ সদস্য কানিজ সুলতানার স্বামী জাহিদ হোসেন বাচ্চু, ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমানের মা শিরিয়া খানম, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিমের মা কাজী নুরজাহান বেগম, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের ট্রাস্টি জিয়াউদ্দিন তারিক আলী, দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদের বোন মরিয়ম হেলাল ও সেন্ট যোসেফ স্কুলের অধ্যক্ষ ব্রাদার রবি থিওডোর পিউরিফিকশরের মৃত্যুতে।

আগের তিনটি অধিবেশনের মতো এবারও মহামারি করোনাভাইরাসের ঝুঁকি এড়াতে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে এ অধিবেশনের কার্যক্রম চলবে।

৯ নভেম্বর সন্ধ্যা ৬টায় বিশেষ অধিবেশনের কার্যক্রম শুরু হবে। ওইদিন অধিবেশনের শুরুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ভাষণ দেবেন। রাষ্ট্রপতির বক্তৃতার আগে ১৯৭২ সালের ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের ভাষণ সংসদ কক্ষে দেখান হবে।

বঙ্গবন্ধুর বর্ণাঢ্য ও কর্মময় রাজনৈতিক জীবন নিয়ে রাষ্ট্রপতির স্মারক বক্তৃতার পর তা নিয়ে আলোচনার জন্য একটি সাধারণ প্রস্তাব আনা হবে। ওই প্রস্তাবের ওপর সরকার ও বিরোধীদলীয় সংসদ সদস্যদের দীর্ঘ আলোচনা শেষে তা পাস হবে। জানা গেছে, সাধারণ প্রস্তাবের ওপর টানা চারদিন আলোচনা শেষে বৃহস্পতিবার এটি গ্রহণ করা হবে।

এরপর আগামী সপ্তাহে দুই বা তিনদিন সাধারণ বৈঠক চলার মাধ্যমে অধিবেশনটি শেষ হবে।

বিশেষ অধিবেশনকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে সংসদ সদস্য, সাংবাদিকসহ সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কোভিড-১৯ নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। করোনা নেগেটিভ সব সংসদ সদস্য ৯ নভেম্বর বৈঠকে যোগ দেওয়ার সুযোগ পাবেন। এরপর থেকে আগের মতো করে সংসদ সদস্যরা রোস্টারভিত্তিক বৈঠকে যোগ দেবেন।

এদিকে করোনা নেগেটিভ সাংবাদিকরা কেবল একদিনের জন্য (৯ নভেম্বর) বৈঠকে যোগ দেওয়ার সুযোগ পাবেন।

সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন
আডি/ ০৮ নভেম্বর

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: