বিএনপি এখন জনবিচ্ছিন্ন দলে পরিণত হয়েছে: এনামুল হক শামীম

পানি সম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম বলেছেন, বিএনপি দেশের কোনো দূর্যোগে পাশে না থেকে জনগণকে বিভ্রান্ত ও দেশ বিরোধী নানা ষড়যন্ত্রে ব্যস্ত থাকে। নির্বাচনের আসলে নিশ্চিত পরাজয়ের ভয়ে পেট্রোল বোমা মেরে মানুষ হত্যা করে। আর ক্ষমতায় থাকলে দুর্নীতি ও লুটপাট করতে ব্যস্ত থাকে। এ কারণেই বিএনপি এখন জনবিচ্ছিন্ন দলে পরিণত হয়েছে। আর একমাত্র আওয়ামীলীগ ও বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সকল দুর্যোগে মানুষের পাশে থাকে। এ কারণেই আওয়ামী লীগ মানবতার দল ও জননেত্রী শেখ হাসিনা হয়েছেন মানবতার মা। তাই কোনো ষড়যন্ত্রই জননেত্রী শেখ হাসিনাকে দাবিয়ে রাখতে পারবে না। বাংলাদেশের মানুষের আস্থার ঠিকানা বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা।

সোমবার দিনব্যাপী শরীয়তপুরের নড়িয়ায় বন্যা কবলিত ও নদীর তীর সংরক্ষণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন, আওয়ামীলীগ ও উপমন্ত্রীর রত্নগর্ভা মায়ের প্রতিষ্ঠিত বেগম আশ্রাফুন্নেছা ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বন্যার্তদের মাঝে শাড়ি-লুঙ্গি এবং শুকনো খাবার বিতরণ, ১১ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে নড়িয়ার সুরেশ্বর-ভেদরগঞ্জ-ডামুড্যা-গোসাইরহাট-চরমনপুরা সড়কের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন ও সখিপুরে নদী ভাঙন কবলিত এবং বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণ, ঢেউটিন ও চেক বিতরণ এবং সখিপুরে পল্লী বিদ্যুতের জোনাল অফিসের উদ্ধোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, শরীয়তপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিএম জুলফিকার হোসেন, এজিএম নাজমুল হোসেন, সখিপুর থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও ভেদরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হুমায়ুন কবির মোল্যা, ভেদরগঞ্জের ইউএনও তানভীর আল নাসীফ, সখিপুর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান মানিক সরকার, নড়িয়া উপজেলার সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান খোকন, সহ-সভাপতি ফজলুল হক মাল, বাদশা শেখ, আওয়ামী লীগ নেতা জহির সিকদার, কাওসার আহমেদ তকি, ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রব খান, কামরুজ্জামান মানিক সরদার প্রমুখ।

উপমন্ত্রী শামীম আরও বলেন, করোনাকালীন দুর্যোগের সময়ও পদ্মাসেতু সহ দেশের সকল উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তাঁর মন্ত্রী সভার সদস্য, এমপি ও আওয়ামীলীগের সকল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। আর বিএনপি হতাশায় বেপরোয়া দলে পরিণত হয়েছে। তারা ভুল রাজনীতির কারণে এখন দিশেহারা।

ইত্তেফাক/আরএ

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: