চলতি বছর আরও ৮০০টি পরিষেবা ডিজিটাইজ হচ্ছে : পলক

চলতি বছর আরও ৮০০টি পরিষেবা ডিজিটাইজ হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। সোমবার হুয়াওয়ে টেকনোলজিস বাংলাদেশ লিমিটেড এর উদ্যোগে আয়োজিত ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার ২০২১’র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যোগ দিয়ে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

পলক বলেন, আমরা ২০২১ সালের মধ্যে আরও প্রায় ৮০০ টি পরিষেবা ডিজিটাইজ করার জন্য কাজ করছি। জনগণ যাতে আরও সহজে এবং সাবলীলভাবে সেবা পায় সেজন্য আমরা এ ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি। আমরা জাতীয় হেল্পলাইন ৩৩৩ চালু করেছি। এই হেল্পলাইন আমাদের ডিজিটাইজেশন নীতিতে অন্তর্ভুক্তি নিশ্চিত করেছে।

তিনি আরও বলেন, স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে আমরা একটি জাতীয় ওয়েব পোর্টাল চালু করেছি। এই পোর্টালটিতে ৫১ হাজারেরও বেশি সমন্বিত ওয়েবসাইট রয়েছে যাতে বাংলাদেশের নাগরিকরা পাবলিক অফিস, মন্ত্রণালয় এবং অন্যান্য বিভাগের তথ্য সহজে পেতে পারে।

তরুণ ও যুব সমাজই উন্নয়নের চালিকাশক্তি উল্লেখ করে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী বলেন, তাদের ভবিষ্যতের উপযোগী করে গড়ে তুলতে তথ্যপ্রযুক্তিগত দক্ষতা অর্জনের বিকল্প নেই। তিনি বলেন শিক্ষার্থীদের আইসিটি মেধা বিকাশে হুয়াওয়ের ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার ‘ ভবিষ্যৎ উপযোগী প্রযুক্তিগত দক্ষতা বিকাশেই নয়, পাশাপাশি একটি ইকোসিস্টেম গড়ে তোলার মাধ্যমে এই খাতে দক্ষ ব্যক্তিদের কাজের সুযোগ করে দিচ্ছে। প্রযুক্তি নিয়ে বর্তমান সরকার কর্তৃক এ পর্যন্ত গৃহীতি ও বাস্তবায়িত প্রতিটি পদক্ষেপেই দেশের গণতন্ত্রায়ণ নিশ্চিত করেছে । সরকারি সেবা কার্যক্রম সহজ ও সাবলীল করতেই যুগপৎভাবেই ব্যবহৃত হয়েছে এই ডিজিটাল প্রযুক্তি।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এবং তাঁর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা , ডিজিটাল বাংলাদেশের আর্কিটেক্ট সজীব ওয়াজেদের নির্দেশনায় আমরা ইতিমধ্যেই প্রায় ১২৩২ টি সরকারি সেবা ডিজিটালাইজড করেছি।

উল্লেখ্য, বিশ্বব্যাপী এসটিইএম (বিজ্ঞান, প্রযুক্তি, প্রকৌশলবিদ্যা ও গণিত) এবং নন-এসটিইএম বিষয়ে মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য হুয়াওয়ের ফ্ল্যাগশিপ সিএসআর প্রোগ্রাম ‘সিডস ফর দ্য ফিউচার’ স্থানীয় শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ, জ্ঞান প্রদান এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি খাত সম্পর্কে আরও জানাশোনা ও আগ্রহ তৈরিতে কাজ করে। ২০১৪ সালে বাংলাদেশে চালু হওয়া এই প্রোগ্রামটি সারাবিশ্বে প্রায় দশ বছর ধরে মেধা বিকাশে কাজ করে যাচ্ছে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে ভার্চুয়ালি বক্তব্য রাখেন আহসান উল্লাহ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মুহাম্মদ ফজলি ইলাহী, রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মো রফিকুল ইসলাম শেখ, চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ইইই বিভাগের প্রধান ও অধ্যাপক, ড. মোহাম্মদ রুবাইয়াত তানভীর হোসেন, হুয়াওয়ে টেকনোলজিস (বাংলাদেশ) লিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মি ঝাং ঝেংজুন।

ইত্তেফাক/আরকে

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: