প্রথম মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গেমের আত্মপ্রকাশ

this is caption

উদ্বোধন হতে যাচ্ছে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রথম ভিডিও গেম ‘লিবারেশন ৭১’।

২৬ মার্চ বিকেল সাড়ে ৪টায় রাজধানীর ধানমণ্ডি ৩-এর গেম ইন জোনের ‘ক্লাব-থ্রি’তে অনুষ্ঠিত হবে এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠান। এর মাধ্যমেই আত্মপ্রকাশ করতে যাচ্ছে মুক্তিযুদ্ধের ঘটনা অবলম্বনে ইতিহাসভিত্তিক প্রথম কোনো ভিডিও গেম। আপতত এর বেটা ভার্সন প্রকাশ করা হচ্ছে।

গেমটি প্রস্তুত করছে ‘টিম ৭১’ নামে একদল তরুণ। নিজ উদ্যেগেই কাজ করছেন তারা। টাকার অভাবসহ নানা প্রতিকূলতায় কিছুটা বাধা এলেও থেমে যায়নি কাজ। তাদের টিমে রয়েছে মোট ৪০ জন সদস্য। প্রত্যেকেই স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে শ্রম দিচ্ছেন। গেমটি একেবারে পরিপূর্ণভাবে প্রকাশ করা হবে এ বছরের ১৬ ডিসেম্বর।

টিম ৭১-এর উদ্যাক্তাদের একজন অনির্বাণ পরিবর্তনকে বলেন, “আমরা কাজ এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। এটি দেশের সর্বপ্রথম পূর্ণাঙ্গ ফার্স্ট পার্সন শ্যুটার গেম লিবারেশন ‘৭১-এর আলফা ভার্সন। এই আলফা ভার্সন উন্মোচনের মাধ্যমেই দেশের মানুষের সামনে টিম ‘৭১ আত্মপ্রকাশ করবে। তরুণ প্রজন্মের কাছে দেশের মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস পৌঁছে দিতে এবং তাদের মাঝে মুক্তিযুদ্ধের সত্যিকার চেতনাকে জাগিয়ে তুলতেই আমাদের এই প্রয়াস।”

তিনি আরো বলেন, “কোয়ালিটির কথা চিন্তা করে আমরা তাড়াহুড়ো করছি না। এখন আত্মপ্রকাশ করা হবে মাত্র। আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে গুণগত এবং আন্তর্জাতিক মানসম্পন্ন একটা গেইম উপহার দেওয়া। যাতে মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে আমাদের গৌরবোজ্জ্বল এবং প্রকৃত ইতিহাস আমরা সবার দ্বারে দ্বারে পৌঁছাতে পারি। পুরো কাজ শেষ হতে কয়েক মাস লাগবে। আশা করছি বিজয় দিবসে পূণার্ঙ্গভাবে আমরা গেমটি প্রকাশ করতে পারবো।”

মুক্তিযুদ্ধের সময়কার ঘটনা নিয়েই বানানো হয়েছে গেমটি। সম্পূর্ণ গেমটিতে কমপক্ষে ১৬টি মিশন থাকবে। যেগুলো ২৫ শে মার্চ রাত থেকে শুরু হয়ে একটি টাইমলাইন অনুসরণ করে ১৬ ডিসেম্বরে গিয়ে শেষ হবে। এছাড়া গেমের মধ্যে আমাদের সাত জন বীরশ্রেষ্ঠের শেষ মিশনগুলো এবং মুক্তিযুদ্ধের সময়কার অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ মিশনগুলোর আদলে একটি গেম প্লে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

আমা/যাকা/অআ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: