অ্যাপসের মাধ্যমে তথ্যপাচার!

this is caption

অ্যানড্রয়েড মোবাইল সেট থেকে হোয়াটস অ্যাপ-এ মেসেজ পাঠাচ্ছেন? প্রিয়জনের সাথে অন্তরঙ্গ কথা হচ্ছে? সাবধান, যেকোনো সময়ই কিন্তু দু’জনের গোপন কথাবার্তা জেনে যেতে পারে তৃতীয় কেউ। আপনার অ্যাকাউন্ট হ্যাক না করেই তা সম্ভব। আর এর জন্য বিশেষ কাঠখড় পোড়ানোরও দরকার নেই। অ্যানড্রয়েড ফোন ব্যবহারকারীরা কিছু অ্যাপসের সাহায্যে অনায়াসেই এই ‘অন্যায় কর্ম’টি করে ফেলতে পারেন।

বিষয়টা সম্প্রতি প্রকাশ্যে এনেছে একটি ডাচ সংস্থা। তাদের যুক্তির সপক্ষে প্রমাণও দিয়েছে। তারা বলছে, “হোয়াটস অ্যাপ লগ ইন করার সময় তথ্য মাইক্রো এসডি কার্ডে (মোবাইলের মেমোরি চিপ) জমা হয়। অন্য অ্যাপ্লিকেশন ব্যবহারের মাধ্যমে যেকোনো অ্যানড্রয়েড ফোনেই হোয়াটস অ্যাপের তথ্য জেনে নেওয়া সম্ভব। এই ধরনের ফোনে তথ্য আদান-প্রদানের ক্ষেত্রে এমনটা করা সম্ভব।”

হোয়াটস অ্যাপের পুরনো ভার্সনে এই সমস্যা আরো বেশি। সেখান থেকে তথ্য ব্যবহার করা আরো সহজ। সেই তুলনায় উইনডোজ বা আইফোন অনেকটা নিরাপদ বলেই জানাচ্ছে ডাচ সংস্থাটি। কারণ এই ধরনের ফোনে অ্যাপ্লিকেশনে কিছু সীমাবদ্ধতা থাকে। মেমোরি চিপেও একসাথে খুব বেশি তথ্য সঞ্চিত থাকে না। ফলে সহজে অন্য ফোনের তথ্য পাওয়া যায় না।

তাই গোপন কথা হোয়াটস অ্যাপে বুঝে শেয়ার করাই ভাল।

আমা/এএ/রর

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: