রিয়েলমি নারজো ৩০ – দুর্দান্ত গেমিং এবং ট্রেন্ডি ডিজাইনের সমন্বয়

তরুণ প্রজন্মের পছন্দের স্মার্টফোন ব্র্যান্ড রিয়েলমি’র নারজো সিরিজ সবসময়ই গেমারদের প্রত্যাশা পূরণ করেছে। ব্যবহারকারীদের দুর্দান্ত গেমিং অভিজ্ঞতা দিতে অত্যাধুনিক ফিচার সমৃদ্ধ নারজো সিরিজ অনবদ্য।

অপেক্ষার প্রহর শেষে, রিয়েলমি আবারও তরুণ গেমারদের চাহিদা মেটাতে, বাজারে নিয়ে এসেছে তাদের নারজো সিরিজের আরেকটি নতুন স্মার্টফোন। রিয়েলমি নারজো ৩০ স্মার্টফোনটি ‘জেড জেনারেশন’র তরুণ স্মার্টফোন ব্যবহাকারীদের দিবে দুর্দান্ত গতি ও পারফরম্যান্সের সমন্বয়ে অনবদ্য স্মার্টফোন অভিজ্ঞতা। স্বাভাবিকভাবেই ব্যবহারকারীদের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে যে, কেন এই স্মার্টফোনটি বাজারের অন্য মোবাইলের চেয়ে আলাদা বা কিভাবে এটি তরুণ গেমারদের প্রত্যাশা পূরণ করবে। বিস্তারিত জানতে ক্লিকঃ https://cutt.ly/BuyNow_narzo30।

দুর্দান্ত পারফরম্যান্স ও সুপার স্মুথ ডিসপ্লে

Realme Narzo 30 announced with Helio G95 and 90Hz screen - GSMArena.com news

নারজো ৩০ স্মার্টফোনে আছে মিডিয়াটেক হেলিও জি৯৫ প্রসেসর; যা ব্যবহারকারীদের দিবে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স। এমন শক্তিশালী হাইলি অপটিমাইজড গেম-ওরিয়েন্টেড প্রসেসরের সাহায্যে, তরুণ গেমাররা কল অব ডিউটি, অ্যাসফাল্ট ৯-এর মত যে কোনো হেভি গেম খেলতে পারবেন অনায়াসে। শুধু তাই নয়, ২.০৫ গিগাহার্টজ পর্যন্ত দুটি উচ্চ-কর্মক্ষমতার কর্টেক্স-এ৭৬ কোর ও ২ গিগাহার্টজ পর্যন্ত ছয়টি উচ্চ-দক্ষতার কর্টেক্স-এ৫৫ কোর ব্যবহারকারীদের দিবে চমকপ্রদ গেমিং অনুভূতি।

শক্তিশালী প্রসেসরের পাশাপাশি, ৯০ হার্টজ ফুল এইডি প্লাস আল্ট্রা স্মুথ ডিসপ্লে’র ফলে ব্যবহারকারীরা স্মুথ ও সাবলিলভাবে এ স্মার্টফোনটি ব্যবহার করতে পারবেন। মোবাইলটির ৬.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে ও ৫৮০ নিটস পর্যন্ত ব্রাইটনেস দিবে অসাধারণ অডিও ভিজ্যুয়াল অভিজ্ঞতা। ফলে, গেমিং-এর সময় যেকোনো কৌশলী পদক্ষেপ নিতে ব্যবহারকারীরা অনেক স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করবেন এবং স্মুথ অনুভূতি পাবেন। স্ক্রিন কালার টেম্পারেচার অ্যাডজাস্টমেন্ট ফাংশন থাকার কারণে দীর্ঘ সময় ধরে ব্যবহার করলেও আপনি চোখের ওপর কোনো চাপ অনুভব করবেন না। ফলে এ কথা বলাই যায় যে, এ ফোনের পারফরম্যান্স অসাধারণ এবং এর দুর্দান্ত ডিসপ্লে ব্যবহারকারীদের গেমিং অভিজ্ঞতাকে নিয়ে যাবে অন্য মাত্রায়।

ট্রেন্ডি এবং গতিশীল ডিজাইন

রেসিং টেক্সচার-এর অন্তর্ভুক্তি নারজো ৩০’র ডিজাইনে অনন্য মাত্রা যোগ করেছে। এর রেস ট্র্যাকের ক্লাসিক ভি আকৃতি লাইনের আদলে তৈরি করা ডিজাইন তরুণ প্রজন্মের গেমারদেরকে দিবে স্টাইলিশ আউটলুক। এটি ডিজাইন করা হয়েছে উন্নত ডুয়েল টেক্সচার স্প্লাইসিং প্রসেস ও নতুন অপটিক্যাল কোটিং প্রযুক্তির সমন্বয়ে। ফলে, এই ফোন স্বচ্ছ ভিজ্যুয়াল ইফেক্ট তৈরি করতে সক্ষম। অ্যান্ড্রয়েড ১১ ও রিয়েলমি ইউআই ২.০ সমৃদ্ধ স্মার্টফোনটি ব্যবহারকারীদের দিবে দ্রুত, মসৃণ ও নিরাপদ ব্যবহারের অভিজ্ঞতা। এটি তরুণদেরকে নিজের নান্দনিকতা প্রকাশে বিভিন্ন বিকল্প থেকে চাহিদা ও ইচ্ছামত কাস্টমাইজ করার স্বাধীনতা দিবে। এমন চমৎকার দিকগুলোই এ ফোনের ডিজাইনকে ট্রেন্ডি এবং স্টাইলিশ করে তুলেছে।

৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের শক্তিশালী ব্যাটারি ও ৩০ ওয়াট ডার্ট চার্জ

রিয়েলমি নারজো ৩০ – দুর্দান্ত গেমিং এবং ট্রেন্ডি ডিজাইনের সমন্বয়

শক্তিশালী ৫০০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের ব্যাটারি সমৃদ্ধ নারজো ৩০ স্মার্টফোনে পুরো চার্জিং প্রক্রিয়ার জন্য রয়েছে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তা সুরক্ষা। অবিশ্বাস্য মনে হলেও সত্য যে, এ স্মার্টফোনটি স্ট্যান্ডবাই মোডে এক মাসের বেশি স্থায়ী হতে পারে। একবার চার্জ দিয়েই এ ফোনে ১৬ ঘণ্টা স্ট্রিমিং উপভোগ করা যাবে এবং ১১ ঘন্টা গেম খেলা যাবে। শুধু তাই নয়, এর শক্তিশালী ৩০ ওয়াট ডার্ট চার্জের মাধ্যমে এ ফোনটি শতভাগ চার্জ হতে সময় নেয় মাত্র ৬৫ মিনিট এবং ৫০ শতাংশ চার্জ হতে সময় নেয় মাত্র ২৬ মিনিট।

এ ফোনের চমকপ্রদ সুপার পাওয়ার সেভিং মোড ব্যবহার করে মাত্র ৫ শতাংশ ব্যাটারি চার্জ নিয়ে কথা বলা যায় ২.৪ ঘণ্টা অথবা স্ট্যান্ডবাই মোডে রাখা যায় ৪০ ঘন্টা। এমন সুপার পাওয়ার সেভিং মোড ব্যবহারকারীদের যেকোনো জরুরী ক্ষেত্রে কাজে আসবে। এছাড়াও, ডার্ট চার্জের সাহায্যে গেমিংয়ের সময়ও ফোনটি সহজেই চার্জ দেয়া যায় এবং এ ফোনটি ব্যবহারকারীদের দুর্দান্ত ব্যাটারি ব্যাকআপ প্রদান করতে সক্ষম।

চমৎকার ফটোগ্রাফিক অভিজ্ঞতার জন্য ৪৮ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ

নারজো ৩০ স্মার্টফোনে পিক্সেল ফোর-ইন-ওয়ান প্রযুক্তির সমন্বয়ে একটি এফ/১.৮ অ্যাপারচার লেন্সসহ ৪৮ মেগাপিক্সেল এআই ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ রয়েছে। নাইট ফিল্টার, সুপার নাইটস্কেপ, প্যানোরামা, পোর্ট্রেট মোড, টাইম ল্যাপস ফটোগ্রাফি, আল্ট্রা ম্যাক্রো, এআই সিন রিকগনিশন, এআই বিউটি ও ক্রোমা বুস্টের মতো অনেকগুলো চমৎকার ফাংশন রয়েছে এই ক্যামেরা সেটআপে। মোডগুলোর সমন্বয়ে অত্যন্ত সুক্ষ্ম ও স্পষ্ট ছবি তোলা যায়।

রিয়েলমি নারজো ৩০ – দুর্দান্ত গেমিং এবং ট্রেন্ডি ডিজাইনের সমন্বয়

এ স্মার্টফোন হাতে থাকলে রাতে অথবা দিনে যেকোনো সময়েই দুর্দান্ত স্পষ্ট ছবি তোলা যাবে। সেলফি প্রেমীদের জন্য এ ফোনে রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা। এর এআই বিউটি মোড ও বোকেহ ইফেক্ট’র সাহায্যে ব্যবহারকারীরা তাদের ত্বকের ধরন ও মুখের আকৃতির বিবেচনায় নিজের মত করে ছবি তুলতে পারবেন।

এছাড়াও, এই ফোনে আছে ফাস্ট সাইড মাউন্টেড ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, সুবিধাজনক শেয়ারিং, ডেটা প্রটেকশন ও ১০০ এরও বেশি কাস্টমাইজেবল অপশনের মত চমকপ্রদ ও দুর্দান্ত সব ফিচার। পাশাপাশি, রিয়েলমি দিচ্ছে ‘রিয়েল কোয়ালিটি’র নিশ্চয়তা। দুর্দান্ত গতি ও পারফরম্যান্সসহ সকল অসাধারণ ফিচারের সমন্বয়ে তৈরি রিয়েলমি নারজো ৩০ চ্যাম্পিয়ন গেমারদের জন্য নিঃসন্দেহে অতুলনীয় একটি স্মার্টফোন।

৬ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি স্টোরেজ সমৃদ্ধ নারজো ৩০ স্মার্টফোনটি রেসিং সিলভার ও রেসিং ব্লু এই দুইটি দুর্দান্ত কালারে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে। বর্তমানে এর বাজারমূল্য মাত্র ১৯ হাজার ৯৯০ টাকা। এই প্রাইস রেঞ্জে বাজারের সেরা ফোন রিয়েলমি নারজো ৩০।

ইত্তেফাক/আরকে

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: