টিভি ব্ল্যাকআউটের ঝুঁকিতে বাংলাদেশ-নিউ জিল্যান্ড সিরিজ

ঢাকা, ২২ নভেম্বর – পাকিস্তানকে আতিথেয়তা দেওয়ার পরপরই বাংলাদেশ ক্রিকেট দল নিউ জিল্যান্ডে উড়াল দেবে। দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ। কিন্তু দুই দলের সিরিজটি টিভি ব্ল্যাকআউটের ঝুঁকিতে রয়েছে। যেখানে কোনো স্থানীয় সম্প্রচারক মিডিয়া স্বত্ব কিনতে আগ্রহ দেখাচ্ছে না।

যদি কোনো সম্প্রচারক মিডিয়া স্বত্ব না কিনে তাহলে বাংলাদেশি সমর্থকরা টিভিতে খেলা দেখা থেকে বঞ্চিত হবেন। ধারণা করা হচ্ছে, জাতীয় ক্রিকেট দলের ঘরের মাঠে এবং বাইরের হতশ্রী পারফর‌ম্যান্সের কারণেই স্থানীয় কোনো সম্প্রচারক খেলা দেখাতে চাইছে না।

পাকিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট শেষে এক সপ্তাহ বিশ্রামে থাকবেন ক্রিকেটাররা। মধ্য ডিসেম্বরে দল নিউ জিল্যান্ডে উড়াল দেবে। কোয়ারেন্টাইন শেষে পহেলা জানুয়ারি থেকে শুরু হবে বাংলাদেশ ও নিউ জিল্যান্ডের টেস্ট। ১-৫ প্রথম টেস্ট এবং ৯-১৩ দ্বিতীয় টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু সিরিজ শুরুর ৪০ দিন আগেও সম্প্রচারক নির্ধারিত না হওয়া রীতিমত উদ্বেগের।

বাংলাদেশের স্পোর্টস মার্কেটিং কোম্পানি টোটাল স্পোর্টস মার্কেটিং ছয় বছরের জন্য নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের সম্প্রচার স্বত্ব কিনে নিয়েছে। সুনামের সঙ্গে ব্যবসা করলেও প্রতিষ্ঠানটি এবার বড় আর্থিক লোকসানের শঙ্কায় রয়েছে। যদি বাংলাদেশে কোনো চ্যানেল খেলা দেখাতে রাজি না হয় তাহলে বিশাল আর্থিক ক্ষতি হবে।

রোববার রাতে টোটাল স্পোর্টস মার্কেটিংয়ের চেয়ারম্যান মইনুল হক চৌধুরী বলেন,‘নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটের ছয় বছরের ব্রডকাস্ট স্বত্ব আমাদের কেনা। কিন্তু জানুয়ারিতে বাংলাদেশের দুটি টেস্ট ম্যাচের সম্প্রচার স্বস্ত এখনও কেউ নিতে আগ্রহ দেখায়নি। আমাদের কাছে এখনও কোনো বিড আসেনি। আমরা চেষ্টা করছি। কিন্তু শঙ্কায় আছি, সিরিজটি শেষ পর্যন্ত অবিক্রিত থাকতে পারে।’

সিরিজ নিয়ে আগ্রহ না থাকার কারণ জানাতে গিয়ে তিনি যোগ করেন, ‘বাংলাদেশের সাম্প্রতিক সময়ের পারফরফরম্যান্স একটা বড় ফ্যাক্টর। কিন্তু নিউ জিল্যান্ডে আমরা কখনোই ভালো খেলিনি সেটা তো নয়। টেস্টে আমাদের ডাবল সেঞ্চুরি আছে। সেঞ্চুরি আছে। ওয়ানডেতেও আমরা ভালো করেছি। আমরা ম্যাচ জিতিনি। কিন্তু মাঠে লড়াই তো হয়েছে। কিন্তু মনে হচ্ছে এবারের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সটা বিবেচনায় আনছে অনেকে। এছাড়া কোভিড পরিস্থিতিও একটা কারণ হতে পারে। কিন্তু কোভিডকালীন পরিস্থিতিতে তো এই বছরই বাংলাদেশ নিউ জিল্যান্ড গিয়েছে। ব্যবসায় মন্দা হলে তো সেই সিরিজটিও দেখানো হতো না।’

টোটাল স্পোর্টস মার্কেটিং দেশে টিভি স্বত্ব বিক্রি করতে পারুক আর নাই পারুক নিউ জিল্যান্ড ক্রিকেটকে অর্থ দিতেই হবে।

প্রসঙ্গত, নিউ জিল্যান্ডে তিন ফরম্যাট মিলিয়ে ৩২ ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। জিততে পারেনি কখনো।

সূত্র : রাইজিংবিডি
এন এইচ, ২২ নভেম্বর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: