rankmath বার্সাকে বিদায় দিলো অ্যাথলেটিকো

বার্সাকে বিদায় দিলো অ্যাথলেটিকো

this is caption

নিজেদের মাটিতে বার্সাকে রুখে দিলো আরেক স্প্যানিশ ক্লাব অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। বার্সার সকল আক্রমণের কলাকৌশল রপ্ত করেই মাঠে পা রেখেছিল দিয়েগো সিমিওনের অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ। সেই ১৯৭৪ সালের পরে এবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগের সেমিতে পা রাখলো দলটি। বার্সাকে তারা ১-০ গোলে পরাজিত করেছে। এ পরাজয়ের মাধ্যমে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার দৌড় থেকে ছিটকে গেলো কাতালানরা।

২০০৭ সালের পর এই প্রথম ইউরোপীয় ফুটবলের সর্বোচ্চ এই প্রতিযোগিতায় সেমিতে উঠতে ব্যর্থ হল বার্সেলোনা। কিছুদিন ধরেই বাতাসে গুঞ্জন ছিলো বার্সা ছাড়ছেন জেরার্ডো মার্টিনো; অ্যাথলেটিকোর বিপক্ষে হেরে মার্টিনোর বার্সা ছাড়ার পাকা দলিল হয়ে গেল।

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের প্রথম লেগে বার্সার মাঠে ১-১ গোলে ড্র করে একটি অ্যাওয়ে গোলের সুবিধা আগে থেকেই ছিল অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদের পক্ষে। ফলে দুই লেগ মিলিয়ে ২-১ গোলে সেমিতে উঠলো করল মাদ্রিদের ক্লাবটি।

ম্যাচের ৬ মিনিটের মাথায় গোল করে দলকে এগিয়ে নেন অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ মিডফিল্ডার কোকে। কোকের একমাত্র গোলটিই তার দলকে বার্সার বিপক্ষে জয় পাইয়ে দিয়েছে। ডেভিড ভিয়ার ক্রসে বক্সের ভিতরে মাথা ছুঁড়ে আদ্রিয়ানো বলটি বাড়িয়ে দেন কোকের উদ্দেশ্যে। পোস্টের সামনেই থাকা কোকে বলটি পাঠিয়ে দেন বার্সার জালে।

ম্যাচে বেশ কিছু দুর্দান্ত সেভ করে নিশ্চিত গোলের হাত থেকে দলকে রক্ষা করেছেন অ্যাথলেটিকো মাদ্রিদ গোলরক্ষক থিব্যু ।

দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গোল ব্যবধান কমাতে মরিয়া হয়ে যায় বার্সেলোনা। ৬০ মিনিটে দানি আলভেসের ক্রসে জাভি মাথা ছোঁয়াতে না পারার ফলে আবারো ব্যর্থ হয় বার্সা।

৬৫ মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ পেয়েছিল অ্যাথলেটিকো। এবার কোকের শট ঠেকিয়ে দেন বার্সা গোলরক্ষক ।

৭০তম মিনিটে আবার সুযোগ হাতছাড়া করে অ্যাথলেটিকো। গোলরক্ষককে একা পেয়েও গোল করতে পারেননি গাবি।

৭৮ মিনিটে দারুন একটা সুযোগ পেয়েছিলেন ব্রাজিলিয়ান তারকা ফুটবলার নেইমার। পেদ্রোর ক্রসে ঠিক মতো হেড করতে না পারার ফলে শেষ সুযোগটিও হাতছাড়া হয় লা লিগা চ্যাম্পিয়নদের।

ইয়া/এসএইচ

Leave a Reply

Your email address will not be published.

%d bloggers like this: