বড় ধরনের শাস্তিই পেলেন বিশ্বের দ্রুততম মানব

ডোপ টেস্ট দিতে ব্যর্থ হওয়ায় ২০২১ টোকিও অলিম্পিক থেকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে ১০০ মিটার দৌড়ে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অ্যাথলেট ক্রিস্টিয়ান কোলম্যানকে। বুধবার টুইটারে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে অ্যাথলেটিক্স ইন্টিগ্রেটি ইউনিট।

টুইটারে জানানো হয়েছে, ‘মার্কিন নিয়ম অনুযায়ী ক্রিস্টিয়ান কোলম্যান ডোপ টেস্টে নিজের অবস্থান নিশ্চিত করতে ব্যর্থ হয়েছেন। যা বিশ্ব অ্যাথলেটিক্সে অ্যান্টি-ডোপিংয়ের নিয়মের খেলাপ।’

টুইটারে কোলম্যান নিজেও নিষিদ্ধের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। স্বীকার করে নিয়েছেন ২০১৯ সালে তিনটি ড্রাগ টেস্ট এড়িয়ে গেছেন। সঙ্গে নিজেকে নির্দোষ দাবি করে এমন ভুল আর কখনোই হবে না বলেছেন। এর আগে তিনি বলেছিলেন, ‘আমি কখনোই শক্তিবর্ধক ড্রাগ নেইনি এবং ভবিষ্যতে নেবও না। নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে ভবিষ্যতে প্রতিটি ড্রাগ টেস্টেই হাজির থাকবো।’

ড্রাগ টেস্ট দিতে ব্যর্থ হওয়ার কারণ হিসেবে অ্যাথলেটিক্স ইন্টিগ্রেটি ইউনিট ও নিজের মধ্যে ভুল বোঝাবুঝির কারণকে দুষছেন কোলম্যান। তার ভাষ্য, ৯ ডিসেম্বর যখন তাকে টেস্ট দেয়ার জন্য ফোন দেয়া হয়, তিনি তখন ব্যস্ত ছিলেন বড়দিনের কেনাকাটায়!

শুনানি শেষ না হওয়া পর্যন্ত অ্যান্টি ডোপিং রুলস অনুযায়ী, সবরকম প্রতিযোগিতা থেকেই সাময়িক নিষিদ্ধ থাকবেন কোলম্যান।

ইত্তেফাক/এসআই

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: