পরিকল্পনা করেই অবসর ধোনি-রায়নার

মহেন্দ্র সিং ধোনির অবসর ঘোষণার রাতেই নিজের ক্যারিয়ারের ইতি টানেন তার সাবেক সতীর্থ সুরেশ রায়না। আবেগের বশে নয়, দুই জন এক সঙ্গে পরিকল্পনা করেই এক দিনে অবসরের সিদ্ধান্ত নেন।

রহস্যটা রায়নাই ভাঙলেন। তিনি বলেন, ‘শনিবার (১৫ আগস্ট) অবসর নেব, আমরা মনস্থির করেই রেখেছিলাম। ধোনির জার্সি নম্বর ৭ আর আমার ৩, দুইটা নম্বর যুক্ত করলে হয় ৭৩। আর ১৫ আগস্ট ভারত স্বাধীনতার ৭৩ বছর পূর্ণ করেছে। তাই এর চেয়ে ভালো দিন আর হতে পারে না।’

রায়না আরো বলেন, ‘ধোনি ২৩ ডিসেম্বর (২০০৪ সাল) বাংলাদেশের বিপক্ষে চট্টগ্রামে ক্যারিয়ার শুরু করেছিল। আমার অভিষেক হয়েছিল ৩০ জুলাই (২০০৫ সাল) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। আমরা দুই জনই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট প্রায় একসঙ্গে শুরু করি, চেন্নাই সুপার কিংসেও একসঙ্গে। তাই এখন আমরা একসঙ্গে বিদায় নিলাম এবং আইপিএল একসঙ্গে খেলে যাব।’

ভারতীয় ক্রিকেটে অনবদ্য জুটিগুলোর একটি হলো ধোনি ও রায়না। ক্রিকেটজীবনে ধোনি এবং রায়না একসঙ্গে ৭৩ টি ইনিংস খেলেছেন। জুটি হিসেবে ৩৫৮৫ রান করেছেন এক সাথে। তাদের গড় ৫৬.৯০। ২০১১ সালে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়ে দ্বিতীয়বার যখন ভারত বিশ্বকাপ জেতে, তখনও ধোনির সঙ্গী ছিলেন সুরেশ রায়না। ইংল্যান্ডের চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতেও ধোনির নেতৃত্বে খেলেছিলেন রায়না।

অবসরের ঘোষণা দেওয়ার সময় এক সঙ্গেই ছিলেন ধোনি ও রায়না। তখন একটা আবেগঘন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। রায়না বলেন, ‘আমি জানতাম, ধোনি চেন্নাইয়ে পৌঁছে অবসরের ঘোষণা দেবে, তাই আমিও প্রস্তুত ছিলাম।’

প্রসঙ্গ বর্ণনা করে তিনি বলেন, ‘চার্টার্ড বিমানে ১৪ আগস্ট আমি, পিযুষ চাওলা, দীপক চাহার ও কারান শর্মা রাঁচি পৌঁছে সেখান থেকে মাহি ভাই ও মনু সিংকে তুলে নেই। অবসর ঘোষণার পর আমরা এক জন আরেক জনকে জড়িয়ে ধরেছিলাম এবং অনেক কেঁদেছিলাম। এর পর আমি, পিযুষ, আম্বাতি রাইডু, কেদার যাদব ও কারান একসঙ্গে বসে আমাদের ক্যারিয়ার ও সম্পর্ক নিয়ে কথা বলি। আমরা সে রাতে পার্টিও করি।’

সূত্রঃ দৈনিক ইত্তেফাক

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: