বুঝতেই পারছেন কেমন আছি, মনে হচ্ছে জেলখানায় আছি – মিরাজ

ক্রাইস্টচার্চ, ২৮ ফেব্রুয়ারি – নিউজিল্যান্ডে সিরিজ খেলতে গিয়ে সম্পূর্ণ ভিন্ন এক অভিজ্ঞতার মুখোমুখি বাংলাদেশ দল। একই হোটেলে সবাই, কিন্তু কেউ কারো সাথে দেখা করার সুযোগ পাচ্ছেন না। এক রুম থেকে আরেক রুমে কথা বলতে হচ্ছে টেলিফোন বা ভিডিও কলের মাধ্যমে। দেশে থাকা পরিবার-পরিজনের সাথেও ভিডিকল দিয়ে কথা চালিয়ে যাচ্ছে টাইগাররা।

নিউজিল্যান্ডে তিনদিন পর ৩০ মিনিটের জন্য বাইরে হাঁটতে বেরিয়ে মেহেদী হাসান মিরাজের মনে হচ্ছে যেন ‘জেল থেকে’ ছাড়া পেয়েছেন।

রোববার রুমের বাইরে এসে মিরাজ বলেন, ‘বুঝতেই পারছেন কেমন লাগছে। এই প্রথম পাঁচটা দিন হোটেলের ভেতর কাটিয়েছি। প্রথম দিকে সময় কাটছিল না, কারো সঙ্গে দেখাও হয়নি। প্রথম তিনদিন তো ফোনে ফোনে কথা হয়েছে সবার সঙ্গে। ভিডিও কলে কথা হয়েছে এক রুম থেকে আরেক রুমে। অনেকটা বিরক্ত লাগছিল। তবে যেহেতু পাঁচদিন কেটে গেছে। আশা করি আরও দুদিন সহজেই কেটে যাবে।’

আরও পড়ুন : ভারতকে যত ছাড় দেওয়া হবে আইসিসিকে তত নখদন্তহীন দেখাবে

মিরাজ আরো বলেন, ‘প্রথম তিনদিন তো রুমের ভেতরেই ছিলাম। তারপরে আধাঘণ্টা করে বের হওয়ার সুযোগ পেয়েছি। আমি যখন প্রথমদিন বেরিয়েছিলাম গতকাল, আমার মাথা একটু ঘুরছিল। তারপর আস্তে আস্তে ১০-১৫ মিনিট পর ঠিক হয়েছে। প্রথম তিন দিন যে ঘরের ভেতর বন্দি ছিলাম। আমার নিজের মনে হচ্ছিল জেলখানায় আছি। হতাশা কাজ করছিল, এরকম অনুভূতি হচ্ছিল আরকি। বাইরে বেরিয়ে এসে এখানকার আবহাওয়ার সঙ্গে মানালাম তখন একটু ভালো অনুভূতি হচ্ছিল। একটু ফ্রেশ লেগেছে।’

১৪ দিনের কোয়ারেন্টাইন শেষ হলে নিউজিল্যান্ড আর কোনো জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকতে হবে না ক্রিকেটারদের। একদম স্বাভাবিক সময়ের মতো ঘুরতে ফিরতে পারবেন তারা।

২০ মার্চ ওয়ানডে দিয়ে শুরু হবে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের সিরিজ। ২৩ ও ২৬ মার্চ হবে বাকি দুই ম্যাচ। ২৮ মার্চ প্রথম টি-টোয়েন্টি, ৩০ মার্চ দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি ও ১ এপ্রিল শেষ ম্যাচ খেলে দেশে ফিরবে বাংলাদেশ দল।

সূত্র : বাংলাদেশে জার্নাল
এন এইচ, ২৮ ফেব্রুয়ারি

Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: