চাঁদে বিপুল পরিমাণ পানির সন্ধান!

পৃথিবীর একমাত্র উপগ্রহ চাঁদে বিপুল পরিমাণ পানির সন্ধান পেয়েছেন নাসার বিজ্ঞানীরা। এর যথেষ্ট প্রমাণসহ সোমবার নেচার অ্যাস্ট্রোনমিতে দুটি গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে বলে বিবিসিসহ বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম খবর প্রকাশ করেছে।

আগের ধারণাগুলোতে বলা হচ্ছিল, চাঁদে ছিটেফোঁটা পানি থাকতে পারে। নতুন গবেষণায় বলা হয়েছে, অল্প নয় উপগ্রহটিতে অনুমানের চেয়েও অনেক বেশি পানির সন্ধান মিলেছে। সেই সঙ্গে চাঁদের সূর্যালোকের পৃষ্ঠদেশে এই প্রথম পানির অস্তিত্ব পাওয়া গেল।

‘আণবিক জলের অস্তিত্বের স্পষ্ট এই আবিষ্কার’ চাঁদে ভবিষ্যৎ অভিযান ও মহাশূন্যে আরও গভীর অভিযান ও অনুসন্ধান চালানো সহজ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বিজ্ঞানীদের লক্ষ্য এখন, চাঁদের প্রাকৃতিক উপকরণগুলোতে পানির আধারটি আটকে রাখা।

নেচার অ্যাস্ট্রোনমিতে দুটি গবেষণা প্রতিবেদনে চাঁদে বিপুল পরিমাণ পানির পাওয়ার প্রমাণগুলো তুলে ধরা হয়েছে বলে বিবিসি’র খবরে বলা হয়েছে।

আগের গবেষণাগুলোতে বলা হয়েছিল, চাঁদের অন্ধকারাচ্ছন্ন অংশের গর্তগুলোতেই কেবল পানির পানির আছে। সবশেষ আবিষ্কারে বিজ্ঞানীদের দাবি, চাঁদের সূর্যালোক পৃষ্ঠেও আণবিক পানি রয়েছে।

ভার্চুয়াল টেলিকনফারেন্সে চাঁদে বিপুল পরিমাণ পানির একটা অনুমানও দিয়েছেন গবেষণা দলের সদস্য, ম্যারিল্যান্ডের নাসার গডার্ড স্পেস ফ্লাইট সেন্টারের পোস্ট ডক্টরাল ফেলো ক্যাসে হনিব্যাল- “চাঁদের মাটির প্রতি এক ঘন মিটারে গড়পড়তায় পানির পরিমাণ হতে পারে ১২ আউন্সের এক বোতল।”

নাসার মানব অনুসন্ধান অধিদপ্তরের পরিচালক জ্যাকব ব্লিচার বলেছেন, চন্দ্রপৃষ্ঠে পানির এই আধারের প্রকৃতিটা বিজ্ঞানীদের বুঝতে হবে। এর ফলে এসব পানি ভবিষ্যতে চাঁদের অনুসন্ধান চালনাকারীদের ব্যবহারের জন্য কতটা সহজ হবে তা জানায় সহজ হবে।

সূত্র : দেশ রূপান্তর
এম এন / ২৭ অক্টোবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: